, রোববার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯

admin

উম্বলডন চ্যাম্পিয়ন কভিতোভা ছুরিকাহত

প্রকাশ: ২০১৬-১২-২১ ১৬:৩৪:২৯ || আপডেট: ২০১৬-১২-২১ ১৬:৩৪:২৯

Spread the love

 

উম্বলডন চ্যাম্পিয়ন কভিতোভা ছুরিকাহত
উম্বলডন চ্যাম্পিয়ন কভিতোভা ছুরিকাহত

আরটিএমনিউজ২৪ডটকম, ক্রীড়া ডেস্কঃ দু’বারের উইম্বলডন চ্যাম্পিয়ন চেক টেনিস তারকা পেত্রা কভিতোভাকে ছুরিকাঘাত করেছে এক দুর্বৃত্ত। মঙ্গলবার সকালে কিভিতোভার প্রোসেয়ভের বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।
২৬ বছর বয়সী কভিতোভা এই মুহূর্তে বিশ্ব র‌্যাঙ্কিংয়ে প্রথম দশে নেই। এবং চেক পুলিশের বক্তব্য, ঘটনাটা মঙ্গলবার সকালে কভিতোভার প্রোসেয়ভের বাড়িতে ডাকাতি সংক্রান্ত। পুলিশ আততায়ী হিসেবে বছর পঁয়ত্রিশের এক ব্যক্তির তল্লাশি চালাচ্ছে। বাঁ-হাতি প্লেয়ার কিভিতোভার বাঁ হাতেই অবশ্য ছুরির আঘাত লেগেছে। যার কয়েক ঘণ্টা আগেই তিনি পার্থে নববর্ষের দিন শুরু হপম্যান কাপ থেকে নাম তুলে নিয়েছিলেন পায়ের চোট পুরো সেরে না ওঠার কারণে। এখন তার খেলার হাতেই ছুরির আঘাত লাগায় পরের মাসে কভিতোভার অস্ট্রেলীয় ওপেনে অংশ নেওয়াও প্রশ্নের মুখে পড়ে গেল।
হতাশ এবং তার থেকেও অনেক বেশি ভয়ার্ত কভিতোভা এক টুইটার বিবৃতিতে বলেছেন, ‘আজ আমার বাড়িতে ছুরি হাতে এক দুষ্কৃতী আমাকে আক্রমণ করেছিল। লোকটাকে আমি বাধা দিতে গেলে আমার বাঁ হাতে সে ছুরি মারে। প্রচণ্ড ভয় পেয়েছিলাম। আমার কপাল ভাল যে, বেঁচে আছি। হাতের আঘাতটা এত মারাত্মক, আমাকে স্পেশ্যালিস্ট ডাক্তারের কাছে যেতে হয়েছে। কিন্তু আপনারা নিশ্চয়ই জানেন আমি মানসিকভাবে কতটা শক্তিশালী। তাড়াতাড়ি সুস্থ হওয়ার জন্য লড়ব। শুধু সেই সময়টা আমাকে একা থাকতে সাহায্য করুন।’
সাড়ে তেইশ বছর আগে টেনিস বিশ্বে এ রকম আরেকটি মারাত্মক ঘটনা ঘটেছিল। ১৯৯৩ সালের ৩০ এপ্রিল ছুরিকাঘাতের শিকার হয়েছিলেন প্রমিলা টেনিস তারকা মনিকা সেলেস।
সেলেস তার হামবুর্গ ওপেন ম্যাচ চলাকালীন কোর্টেই জনৈক ‘স্টেফি ভক্তে’র দ্বারা ছুরিকাহত হয়েছিলেন। সার্ভিস ব্রেকের সময় চেয়ার-আসীন সেলেসকে কাঁধে ছুরি মেরেছিলেন দুষ্কৃতী। যার পর প্রাক্তন বিশ্বসেরা সেলেস আর মাত্র একটাই গ্র্যান্ড স্ল্যাম জিততে পেরেছিলেন। এবং ওই অভূতপূর্ব আক্রমণের পরেই টেনিস ট্যুরে সার্ভিস ব্রেকের সময় প্লেয়ারের সামনে-পিছনে বলবয়ের দাঁড়িয়ে থাকা গোটা বিশ্বে বাধ্যতামূলক। যাতে প্লেয়ারকে কেউ আঘাত করতে না পারে।

ক্রীড়া ডেস্কঃ টি-টোয়েন্টির সংক্ষিপ্ত ফরম্যাটে এক ইনিংসের সর্বোচ্চ ৫টি ছক্কার রেকর্ড গড়েছেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। বাংলাদেশ
পুরো টুর্নামেন্টে অসাধারণ খেলা বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দল ফাইনালের মঞ্চেও দাপট দেখাচ্ছে। শিরোপা নির্ধারণী ম্যাচে প্রথমে
মিরপুরে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে জয় পেয়েছে বাংলাদেশ। তবে সেই জয় সহজে আসেনি। মাত্র ৬০ রানের মাথায়
আফিফের দুর্দান্ত ব্যাটিংয়ে হতাশার ম্যাচে বাংলাদেশের দারুণ জয় । দলীয় ৬০ রানের মাথায় সাব্বির রহমান
৩৯৮ রানের টার্গেট। অতীতে কখনো এত রান তাড়া করে জেতেনি বাংলাদেশ। ফলে হারের শংকা ছিলই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Logo-orginal