১২ই ডিসেম্বর, ২০১৭ ইং, ২৯শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ
head banar ads here

সাতকানিয়ায় স্কুলের সামনে বখাটেদের উৎপাত, উদ্বিগ্ন অভিভাবক

সোমবার, ২১/০৮/২০১৭ @ ৮:৪৮ পূর্বাহ্ণ

Spread the love

Chatri-evtizing

সিনিয়র রিপোর্টার, আরটিএমনিউজ২৪ডটকম, চট্টগ্রাম: চট্টগ্রামের সাতকানিয়ায় বিদ্যালয়ের সামনে প্রতিদিন বখাটেদের আড্ডা দেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এদের বেশির ভাগই মাদকের সঙ্গে জড়িত। তারা বিদ্যালয়ের আশেপাশে স্কুল ছাত্রীদের প্রেমের প্রস্তাব দেওয়াসহ নানাভাবে উত্ত্যক্ত করে আসছে। এ অবস্থায় ছাত্রীরা অসহায়, উদ্বিগ্ন তাদের অভিভাবকরা।

একাধিক সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার ছদাহা কেঁওচিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের সামনে ইদানিং বখাটেদের আনাগোনা চরম আকার ধারণ করেছে। ক্লাস শুরু এবং ছুটির পূর্বে বিদ্যালয়ের আশেপাশে অবস্থান নিচ্ছে বখাটে ইভটিজার বাহিনী। পথে ঘাটে ছাত্রীদের প্রেম নিবেদন এবং আপত্তিকর মন্তব্য করে তারা।

আবার অনেকেই বেপরোয়া গতিতে মোটরসাইকেল চালিয়ে মেয়েদের দৃষ্টি আকর্ষণ করার চেষ্টা করে। ছাত্রীরা যখন স্কুলে ঢুকে যায় তখন ঐসব যুবকরা যে যার মতো চলে যায়। আবার টিফিন ও ছুটি হওয়ার সময় তারা স্কুলের আশেপাশে ও মসজিদ মোড়ে এসে হাজির হয় এবং একই কর্মকান্ড প্রতিনিয়ত চলতে থাকে। ফলে ছাত্রীদের স্কুলে আসা যাওয়া এখন দায় হয়ে পড়েছে এবং শঙ্কায় থাকতে হচ্ছে তাদের অভিভাবকদেরও। বিষয়টি প্রতিদিনের রুটিন তালিকার মতো হলেও স্কুল কর্তৃপক্ষের তেমন নজরে না আসায় বেপরোয়া হয়ে উঠেছে এসব বখাটে চক্র।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, স্কুলের দক্ষিণ পাশে মসজিদ মোড়ে ও পুকুর পাড়ে মোটরসাইকেলে এসে ভাব জমিয়ে আড্ডা দিচ্ছে তারা। পাশাপাশি মেয়েদের দেখলেই আপত্তিকর মন্তব্য করছে। বিদ্যালয়ের পূর্ব পাশে ও মসজিদ মোড়ে চা-সিগারেটের দোকানে ঘন্টার পর ঘন্টা আড্ডা দিতে দেখা গেছে বখাটেদের। অথচ স্কুল কর্তৃপক্ষের তেমন কোন নজরদারীর দেখা মিলছে না বলে অভিযোগ শিক্ষার্থীদের।

1914794_750555551711672_9047019767312948271_n

নাম প্রকাশ না করার শর্তে বিদ্যালয়ের একাধিক ছাত্রী অভিযোগ করে বলেন, তাদের ক্যাম্পাসে প্রবেশ এবং বাহির হওয়ার প্রধান রাস্তা হলো মসজিদ মোড় থেকে চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়ক ও বান্দরবান সড়ক পর্যন্ত। এ সড়কটিতে স্কুল ছুটি এবং শুরুর সময় বহিরাগত ছেলেরা এসে আড্ডা দেয়। মেয়েদের দেখে নানা অশালিন মন্তব্য করে। বিশেষ করে ছুটির সময় এদের উৎপাত বেশি থাকে। চোখে সানগ্লাস, হাতে মোবাইল এবং মোটরসাইকেলে এসে নানা ভাবে সমস্যার সৃষ্টি করে মেয়েদের। তাছাড়া স্কুলের আশপাশে চায়ের দোকানগুলোতে চা পানের নামে আড্ডা জমাচ্ছে তারা। অথচ ক্লাস শুরু কিংবা ছুটি কোন সময়েই স্কুল কর্তৃপক্ষের নজরদারী দেখা যায় না বলে অভিযোগ করেছেন ছাত্রীরা।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে এক অভিভাবক জানান, বখাটের উৎপাতের কারণে মেয়েকে স্কুলে পাঠাতে ভয় হয়। তিনি আরো জানান, স্কুল কর্তৃপক্ষের একটু নজরদারীতে বখাটেদের উৎপাত বন্ধ হতে পারে।

বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক অলি উল্লাহ জানান, আমরা স্কুলের সামনে বখাটেদের উৎপাত বন্ধে তৎপর আছি। স্কুল চলাকালীন সময়ে প্রতিষ্ঠানের সামনে নজরদারী থাকবে। ছাত্রীরা যেন নির্ভয়ে স্কুলে যাওয়া আসা করতে পারে সেজন্য স্কুলের পক্ষ থেকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সামনে ও আশেপাশে স্কুল কর্তৃপক্ষের নজরদারী এবং বখাটে পাকড়াও অভিযান শুরুর দাবীও তুলেছেন শিক্ষার্থী এবং তাদের অভিভাবকরা।