২১শে সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ইং, ৬ই আশ্বিন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ
head banar

আরাকানের সাথে চাটগাঁ বাসীর ঐতিহাসিক সম্পর্ক

Wednesday, 06/09/2017 @ 1:01 am

আরাকানের সাথে চাটগাঁ বাসীর ঐতিহাসিক সম্পর্ক

আরাকানের সাথে চাটগাঁ বাসীর ঐতিহাসিক সম্পর্ক

রায়হান আজাদ, আরটিএমনিউজ২৪ডটকম, চট্টগ্রামঃ  আমরা সবাই জানি, বাণিজ্যিক রাজধানী চট্টগ্রাম শহরের বহদ্দারহাট টু কক্সবাজারের প্রধান সড়কটির নাম আরাকান সড়ক।

 

এ সড়কের দু‘পাশে গড়ে উঠেছে শত শত মুসলিম জনপদ। এসব জনপদের সাথে আরাকান রাজ্যের সম্পর্ক অত্যন্ত সুনিবিড় ও ঐতিহাসিক।

 

চট্টগ্রামের কিংবদন্তি ব্যবসায়ী আবদুল বারী চৌধুরী (১৮৭০-১৯৪৪) ছিলেন আরাকানের প্রাদেশিক পরিষদ সদস্য এবং তদীয় জামাতা সাবেক শিল্পমন্ত্রী ও এ.কে. খান শিল্পগোষ্ঠীর প্রতিষ্ঠাতা এ.কে. খান (১৯০৫-১৯৯১) এর বিয়েও হয় আকিয়াবে। তারা ব্যবসা-বাণিজ্য এবং শিক্ষা-সমাজসেবায় ব্যাপক অবদান রাখেন আরাকানে। মাওলানা মুনীরুজ্জমান ইসলামাবাদী (১৮৭৫-১৯৫০) ১৯২৭ সালে রেঙ্গুনে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে ব্যাপক তৎপরতা পরিচালনা করেন।

হাটাহাজারী মাদরাসার প্রথম ছেরপোরস্ত এবং যার নামে পটিয়া মাদরাসার নামকরণ হয় সেই মাওলানা যমীরুদ্দীন রহ. (১৮৭৮-১৯৪০) ইমামতি ও পড়াশোনা করেন রেঙ্গুনে।

মাওলানা হাফেজ আহমদ প্রকাশ চুনতীর শাহ সাহেব (১৯০৪-১৯৮৩) তো ইমাম থাকাকালে মায়ানমারেই এক মসজিদে আধ্যাত্মিক মর্তাবা লাভ করেন। বিশিষ্ট উর্দু কবি হাকীম ইসমাঈল হিলালী (১৯১৭-১৯৮৮) ও আবু কাওয়াল (১৯১১-১৯৭৫) যশ-খ্যাতি অর্জন করেন রেঙ্গুনে। বায়তুশ শরফের রূপকার শাহ মাওলানা আবদুল জব্বার (১৯৩৩-১৯৯৮) এর জন্মই তো হয় বার্মার থাংগু জেলায় পিনজুলুক বাঙ্গালী বস্তিতে, তার বাবা সেখানকার এক মসজিদের ইমাম ছিলেন। মাওলানা আবদুস সালাম আরাকানী রহ. এর বহু খলীফা ও মুরীদ রয়েছে আমাদের এ চট্টগ্রাম ও কক্সবাজারে। এছাড়া আমাদের আরো বহু দাদা-পরদাদা ও মুরব্বী ব্যবসা-বাণিজ্য, শিক্ষা ও ধর্মপ্রচারের উদ্দেশ্যে বার্মায় গমন করেন।

তাদের অনেকে সেখানে স্থায়ীভাবে বসতি গড়ে তুলে প্রজন্ম পরম্পরায় বসবাস করে। আজ তাদের সন্তান-নাতী-পূতীদেরই বার্মার মগ-সেনারা জীবন্ত দগ্ধ করছে। ঘরবাড়ি জ্বালিয়ে দিয়ে বিতাড়িত করছে। এ ভাগ্য বিড়ম্বিত মুসলিম জনগোষ্ঠীকে আমরা কিছুতেই পর ভাবতে পারি না। তাদের জন্য সাধ্যানুসারে সবকিছু করা আমাদের নৈতিক দায়িত্ব।

সংগ্রহে# তানভীরুল হাসান।

এই পাতার আরো সংবাদ
bg1
bg1
top-banner
bg1