২২শে সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ইং, ৭ই আশ্বিন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ
head banar

বাংলাদেশ দলে পরিবর্তন আসছে

Sunday, 10/09/2017 @ 4:24 pm

দলে পরিবর্তন আসছে একাধিক

 

আরটিএমনিউজ২৪ডটকম, ক্রীড়া ডেস্কঃ প্রথম ইনিংসে ৪ নম্বর পজিশনে ব্যাটিং করেন। কিন্তু দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাটিং করেন ৮ নম্বরে। মুমিনুল হকের এই ব্যাটিং অর্ডার নিয়ে ক্ষিপ্ত ক্রিকেটপ্রেমীরা। টিম ম্যানেজমেন্টের এই সিদ্ধান্ত কোনোভাবেই মেনে নিতে পারেনি তারা। সমালোচনায় বিদ্ধ করেছেন কোচ চন্ডিকা হাতুরাসিংহেসহ টিম ম্যানেজমেন্টকে। ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে মুমিনুলকে দ্বিতীয় ইনিংসে চার নম্বরে  না নামানোর ব্যাখ্যা দেন অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম।

টাইগার অধিনায়কের এই ব্যাখ্যা মনঃপূত হয়নি বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনের। হারের পরের দিন তিনি নিজ বাসভবনে পরিষ্কার করেই জানিয়ে দেন, টিম ম্যানেজমেন্ট চেয়েছিল নাথান লিয়নকে সামাল দিতে মুশফিক নিজে যেন চার নম্বরে ব্যাটিংয়ে নামেন। কিন্তু মুশফিক নিজ ইচ্ছায় ব্যাটিং করেননি। হারের জন্য উপরের সারির ব্যাটসম্যানদের ব্যথর্তাকে দোষারোপ করতেও ভুল করেননি বিসিবি সভাপতি। বিসিবি সভাপতির এহেন বক্তব্যে তোলপাড় ফের ক্রিকেটাঙ্গন। একে অপরকে দোষারোপের এমন খেলায় মেতে উঠা আসন্ন দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজে নেতিবাচক প্রভাব ফেলার সম্ভাবনাই বেশি।

 

তবে গতকাল বিসিবির সভাপতি বলেন, ‘আমি মুশফিক সম্পর্কে কিছুই বলিনি। মনগড়া প্রতিবেদন তৈরি করা হয়েছে। ’ তিনি যে মুশফিকের ওপর অসন্তুষ্ট গতকাল তার কথায়ই প্রমাণ মিলেছে। তিনি বলেন, ‘মাশরাফি তো ওয়ানডে অধিনায়ক। কই তাকে নিয়ে তো এমন গুঞ্জন ওঠেনি। সাকিবও টি-২০তে নেতৃত্ব দিচ্ছে। আমি সভাপতি হলেও মাঠের কোনো ব্যাপারে হস্তক্ষেপ করিনি। ’ ১৮ সেপ্টেম্বর দুই টেস্ট, তিন ওয়ানডে ও দুই টি-২০ খেলতে দক্ষিণ আফ্রিকা যাচ্ছে বাংলাদেশ। সফর উপলক্ষে দুটি দল গড়ছে বিসিবি। ওয়ানডে ও টেস্ট। ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা এবং টেস্টে মুশফিক। অস্ট্রেলিয়ার কাছে হারের পর মিডিয়ার মুখোমুখিতে নিজের অবস্থান তুলে ধরেন টাইগার টেস্ট অধিনায়ক, ‘অধিনায়কত্ব না থাকলে আমার কোনো সমস্যা নেই।

কিপিং না থাকলেও সমস্যা নেই। আমি ব্যক্তিগতভাবে মনে করি দলকে শতভাগ দিচ্ছি কি না। ’ আফ্রিকা সফরে টেস্ট দলে তিন-চারটি পরিবর্তন আসবে এটা প্রায় নিশ্চিত। ব্যর্থ আপার অর্ডারকে ঢেলে সাজাতে ফিরিয়ে আনা হচ্ছে ওপেনার এনামুল হক বিজয়কে। এতে বাদ পড়তে পারেন ইমরুল কায়েশ। মিডল অর্ডারেও পরিবর্তন হচ্ছে। নাসির হোসেনকে ওয়ানডে স্কোয়াডে দেখার সম্ভাবনাই বেশি। চট্টগ্রামে এক পেসার খেললেও আফ্রিকা সফরের কন্ডিশনের বিবেচনায় চার পেসার থাকবেন অনেকটাই নিশ্চিত। শফিউল ইসলাম সুহাসের জায়গায় কামরুল ইসলাম রব্বি ও শুভাশীষ রায়ের ফেরার সম্ভাবনা রয়েছে। বাকি দুই পেসার মুস্তাফিজুর রহমান ও তাসকিন আহমেদ। তিন স্পিনারের মধ্যে তাইজুল ইসলামকে দেশেই থাকতে হবে। লেট মিডল অর্ডারে একজন সিমিং অলরাউন্ডারও থাকতে পারেন। সব মিলিয়ে বিসিবি সভাপতির সঙ্গে আলোচনা করেই আফ্রিকা সফরের সিরিজ ঘোষণা করা হবে। এজন্যই গতকাল স্কোয়াড ঘোষণার কথা থাকলেও শেষ মুহূর্তে করা হয়নি। আজ-কালের মধ্যেই সেটা করা হতে পারে।

 

মিরপুরে অসাধারণ ক্রিকেট খেলে দুর্দান্ত জয় তুলে নেয় বাংলাদেশ। কিন্তু চট্টগ্রামে অস্ট্রেলিয়া, তথা লিয়নের পরিকল্পিত ক্রিকেটের সঙ্গে পেরে উঠেনি টাইগাররা। তাদের অভিজ্ঞতা, স্কিলের কাছে হেরে যান মুশফিকরা। ব্যাটিংয়েও ব্যর্থ হন। বিশেষ করে সৌম্য সরকার, ইমরুল, নাসির, তামিমরা ছিলেন পুরোপুরি ব্যর্থ। উপরের সারির ব্যাটিংয়ে সৌম্য ও ইমরুল কোনো ভূমিকাই রাখতে পারেননি। এদের ব্যর্থতার চাপ সামাল দিতে ব্যর্থ হন সাকিব আল হাসান, মুশফিক, সাব্বিররা। মুমিনুল প্রথম ইনিংসে চার নম্বরে ব্যাট করে ৩১ রান করেন দ্বিতীয় ইনিংসে টিম ম্যানেজমেন্ট দলের প্রয়োজনে ৮ নম্বরে পাঠান তাকে। সে রান করে ২৯। এতে সমালোচিত হয় টিম ম্যানেজমেন্ট। এর ব্যাখ্যায় বিসিবি সভাপতি জানান, মুশফিককে চারে ব্যাটিং করতে বলা হয়েছিল। কিন্তু সে করেনি। মুশফিক উত্তর দেন, ‘১২০ ওভার ফিল্ডিং করার পর চারে ব্যাটিং করা কষ্টকর। ’ অধিনায়কের এমন উত্তরে ক্ষৃব্ধ বিসিবি সভাপতিসহ টিম ম্যানেজমেন্ট।

 

দক্ষিণ আফ্রিকা সফরের আগে এমন কথার চালাচালি দলের উপর নেতিবাচক প্রভাব ফেলতে পারে। যা দলের সাফল্যের গতিধারাকে ব্যাহতই করবে। উৎসঃ   বিডি-প্রতিদিন,

এই পাতার আরো সংবাদ
bg1
bg1
top-banner
bg1