২৪শে নভেম্বর, ২০১৭ ইং, ১১ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ
head banar ads here

পুলিশের বিরুদ্ধে গুরুতর অভিযোগ চট্টগ্রাম নগর ছাত্রলীগের

বুধবার, ১৫/১১/২০১৭ @ ৯:৫৪ পূর্বাহ্ণ

Spread the love

আরটিএমনিউজ২৪ডটকম, চট্টগ্রামঃ নগরীতে নিজ দলের সন্ত্রাসীদের হাতে নিহত ছাত্রলীগ নেতা দিয়াজ-সোহেল-সুদিপ্তের হত্যাকারীদের গ্রেফতারের দাবীতে মাসব্যাপী প্রতিবাদ কর্মসূচীর অংশ হিসেবে নগরীর কালামিয়া বাজার মোড়ে বাকলিয়া থানা ছাত্রলীগের উদ্যোগে এক প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

গতকাল মঙ্গলবার (১৪ নভেম্বর ) বিকালে অনুষ্ঠিত প্রতিবাদ সমাবেশে পুলিশের বিরুদ্ধে তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করে নগর ছাত্রলীগের নেতারা।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী নিজে ফোন করে তিন ছাত্রলীগ নেতার খুনের পরিকল্পনাকারী সহ সকল আসামীদের গ্রেফতারের নির্দেশ দিলেও অদৃশ্য কারণে সে সির্দেশ মানছে চট্টগ্রামের পুলিশ।

পুলিশের বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ তুলেছে খোদ ক্ষমতাসীন দলের ছাত্র সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগ চট্টগ্রাম নগর শাখা।

নগর ছাত্রলীগের সভাপতি ইমরান আহমেদ ইমুর সভাপতিত্বে সাধারণ সম্পাদক নুরুল আজিম রনি পরিচালনায় অনুষ্ঠিত প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তারা বলেন, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী নিজেই গত শুক্রবার রাতে আসামী ও তাদের সহযোগীদের গ্রেফতার করতে চট্টগ্রামের পুলিশ কমিশনার ও জেলা পুলিশ সুপারকে ফোন করে নিদের্শ দেন। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর নির্দেশনা পেলেও চট্টগ্রামের পুলিশ কমিশনার ও জেলা পুলিশ কর্মকর্তারা এই আলোচিত তিন খুনের পরিকল্পনাকারী এবং আসামীদের গ্রেফতার করছে না। এ সময় সভায় ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে ক্ষুব্ধ কন্ঠে হুঁশিয়ার উচ্চারণ বলা হয়, এই তিন খুনের সাথে জড়িতদের রক্ষা করার সকল কৌশল জনসম্মুখে ফাঁস করে দেওয়া হবে। খুনিদের রক্ষা করার জন্য পুলিশের এ ভূমিকা জনমনে পুলিশের প্রতি নেতিবাচক প্রশ্ন তুলেছে আজ।

রাতে মহানগর ছাত্রলীগের উপ-দপ্তর সম্পাদক আশরাফ উদ্দিন টিটু স্বাক্ষরিত সংবাদপত্রে পাঠানো এক প্রেসবিজ্ঞপ্তিতে মহানগর ছাত্রলীগ নেতারা বলেন, জননেত্রী শেখ হাসিনার সুশাসনের জন্য পুলিশের এ ভূমিকা সত্যি হুমকি স্বরূপ।

সমাবেশ থেকে পুলিশকে উদ্দেশ্য করে ছাত্রলীগ নেতারা বলেন, আমরা চট্টগ্রাম শহরে সরকারের শিক্ষানীতিমালার সুফল জনগণের কাছে পৌঁছে দিতে কাজ করছি। কিন্তু দুষ্কৃতিকারীদের হাতে বারবার আমাদের ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা খুন হয়েছে। খুনিদের রক্ষা করতে আপনারা রাজনৈতিক তদবিরের অজুহাত দেখিয়েছেন যা মানা সম্ভব নয়। আমরা বারবার বলেছি, আমাদের আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের চট্টগ্রামে এসে আপনাদের উদ্দেশ্য বলেছেন, খুনীদের আশ্রয় আওয়ামীলীগে হবে না। খুনিদের রাজনৈতিক পরিচয় বিবেচনা না করে গ্রেফতারের জন্য পুলিশকে তিনি নির্দেশও দিয়েছিলেন কিন্তু খুনী গ্রেফতার হয়নি। উল্টো পুলিশ প্রহরায় খুনিদের রাস্তায় সমাবেশ করতে দেখা গেছে। গণমাধ্যমে বারবার এ বিষয় উঠে এলেও পুলিশের ঘুম ভাঙেনি।

সমাবেশে ছাত্রলীগ নেতৃবৃন্দ পুলিশের উদ্দেশ্যে প্রশ্ন করেন, খুনিরা কি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর চেয়ে ক্ষমতাবান নাকি জননেত্রী শেখ হাসিনার সুশাসনের উর্ধ্বে খুনিদের হাত ?

FB_IMG_1510717240864

FB_IMG_1510717247989

সমাবেশে একাত্মতা পোষণ করে বক্তব্য রাখেন নগর আওয়ামী লীগের উপ-প্রচার সম্পাদক শহিদুল ইসলাম শহীদ, সাবেক ছাত্রনেতা শফিউল আজম বাহার, আবদুর রহিম, এম.আর. ইয়াছিন, হাসান আলী, হোসেন টিটু, মনিরাজ, এস.এম. সামাদ, বাংলাদেশ কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সদস্য মো: নাদিম উদ্দিন, মহানগর ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি জয়নাল উদ্দিন জাহেদ, নাঈম রনি, নোমান চৌধুরী, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক গোলাম সামদানী জনি, সাংগঠনিক সম্পাদক খোরশেদ আলম মানিক, সম্পাদকমন্ডলীর সদস্য মিয়া মো: জুলফিকার, মিনহাজুল আবেদীন সানি, মো: ফারুক, ওয়াহিদুর রহমান কিরণ, আবু সালেহ নুর রিমন, মিজানুর রহমান মিজান, সদস্য আরাফাত রুবেল, মহানগর ছাত্রলীগ নেতা বিকাশ দাশ ও শহিদুল ইসলাম শহিদ।

জনমত জরিপ

????? ?? ??????? ???
??
1 Vote
??
0 Vote