১১ই ডিসেম্বর, ২০১৭ ইং, ২৭শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ
head banar ads here

যে কোন সময় আটক হতে পারেন বেগম জিয়া

বৃহস্পতিবার, ৩০/১১/২০১৭ @ ৫:১৩ অপরাহ্ণ

Spread the love

যে কোন সময় আটক হতে পারেন বেগম জিয়া

আরটিএমনিউজ২৪ডটকম, নিউজ ডেস্কঃ জিয়া অরফানেজ ও চ্যারিটিবল দুর্নীতি মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার জামিন বাতিল করে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেছে বিশেষ আদালত।

আজ বৃহস্পতিবার (৩০ নভেম্বর) এই মামলায় আত্মপক্ষ সমর্থনে বিএনপি চেয়ারপারসন অসমাপ্ত বক্তব্য দিতে বিশেষ আদালতে উপস্থিত না হলে আদালত তার জামিন বাতিল করে এই আদশে দেন ।

হরতালের কারণে আজ দুপুরে তিনি আদালতে উপস্থিত হতে পারেননি বলে জানান বিএনপি চেয়ারপারসনের প্রেস সচিব শায়রুল কবির খান।

দুদকের এক আইনজীবী জানান খালেদা জিয়াকে আটক করতে পারে পুলিশ, তবে সরকার সিদ্ধান্ত দিলেই হয়ত পুলিশ এমন পদক্ষেপ নেবে যোগ করেন তিনি।

অন্যদিকে বেগম জিয়ার আইনজীবী তপন চৌধুরী জানান,গ্রেফতারি পরোয়ানার বিরুদ্ধে আমরা দ্রুত উচ্চ আদালতে রিট করব ।

প্রসঙ্গত, বিদ্যুতের মূল্য বৃদ্ধির সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি), বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল (বাসদ) ও গণতান্ত্রিক বাম মোর্চার ডাকা হরতাল ৬টা থেকে শুরু হয়েছে। দুপুর ২টা পর্যন্ত ডাকা এ হরতালে সমর্থন দিয়েছে বিএনপি। একইসঙ্গে ভোক্তা পর্যায়ে বিদ্যুতের দাম গড়ে পাঁচ শতাংশ বাড়ানোর সিদ্ধান্তের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে দলটি।

মামলার এজাহার থেকে জানা যায়, জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্টের নামে অবৈধভাবে ৩ কোটি ১৫ লাখ ৪৩ হাজার টাকা লেনদেনের অভিযোগ এনে খালেদা জিয়াসহ চারজনের বিরুদ্ধে ২০১০ সালের ৮ আগস্ট তেজগাঁও থানায় মামলা করে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

২০১২ সালের ১৬ জানুয়ারি মামলার তদন্ত কর্মকর্তা দুদকের উপ-পরিচালক হারুন-অর-রশিদ বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। ২০১৪ সালের ১৯ মার্চ আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেন ঢাকার তৃতীয় বিশেষ জজ আদালতের বিচারক বাসুদেব রায়।

মামলার অন্য আসামিরা হলেন- খালেদা জিয়ার সাবেক রাজনৈতিক সচিব হারিছ চৌধুরী (পলাতক), হারিছের তখনকার সহকারী একান্ত সচিব ও বিআইডব্লিউটিএর নৌ-নিরাপত্তা ও ট্রাফিক বিভাগের ভারপ্রাপ্ত পরিচালক জিয়াউল ইসলাম মুন্না এবং ঢাকার সাবেক মেয়র সাদেক হোসেন খোকার একান্ত সচিব মনিরুল ইসলাম খান।