২৩শে জানুয়ারি, ২০১৮ ইং, ১১ই মাঘ, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ
head banar ads here

“অধ্যক্ষ মাওলানা ফখরুদ্দীন (রহ): আমার শিক্ষক ও আমার ভালবাসা”

সোমবার, ০৪/১২/২০১৭ @ ১১:২৭ অপরাহ্ণ

Spread the love

“অধ্যক্ষ মাওলানা ফখরুদ্দীন (রহ): আমার শিক্ষক ও আমার ভালবাসা”

সোহাইল আহমদ সুহেল: মাওলানা ফখরুদ্দীন (রহ) একটি নাম, একটি ইতিহাস। বারো আউলিয়া পূণ্যভূমি বীর চট্টলারর জন্মগ্রহণককারী এই আলেমেদ্বীন জীবনের গুরুত্বপূর্ণ সময় ঐতিহ্যবাহী দ্বীনি প্রতিষ্ঠান সিলেট সরকারী আলিয়া মাদ্রসায় অধ্যাপনায় নিয়োজিত ছিলেন।

ইলমে হাদীসের গভীর জ্ঞানের অধিকারী এই শিক্ষকের গ্রহণযোগ্যতা ও জ্ঞানের প্রজ্ঞাতা ছিল আকাশচুম্বী। ছাত্র, শিক্ষক ও কর্মচারী সহ সকলের সাথে ঐক্য, শান্তি আর আত্মার সম্পর্ক ছিল তাঁর। বিনয়, শ্রদ্ধাবোধ, নিয়মানুবর্তিতা, গভীর জ্ঞানের চর্চা আর রসিকতা তাঁর নামে পরীলক্ষিত হত সব সময়। তাছাড়া তিনি ঢাকা আলিয়া মাদ্রাসা ও চট্টগ্রামে ছোবাহানিয়া আলিয়া মাদ্রাসা এবং ঐতিহ্যবাহী দ্বীনি প্রতিষ্ঠান চুনতী হাকিমিয়া আলিয়া মাদ্রাসায় দীর্ঘকাল আমৃত্যু পর্যন্ত মুহাদ্দিস হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। এবং অধ্যক্ষ হিসেবে সিলেট আলিয়া মাদ্রাসা হতে অবসর গ্রহণ করেন।

ইলমে জ্ঞানের বিভিন্ন শাখা বিশেষ করে কুরআন, হাদীস,ইজমা-কিয়াস আর মাসআলা-মাসায়েল সহ বিভিন্ন বিষয়ে তাঁর অগাধ জ্ঞান ছিল। এই যাবৎ আমি যে ক’জন জ্ঞানী পন্ডিত ব্যক্তির সাহচর্য লাভ করেছি তাদেরই একজন ছিলেন এই প্রিয় শিক্ষক। শ্রেণী কক্ষে বিশদ আলোচনার সুযোগ থাকতো তাঁর। কুরআন হাদীস সহ ধর্মতত্ত্বের বিভিন্ন বিষয়ের আলোচনায় তাঁর গভীর জ্ঞানের পরিচয় পেতাম।

পাঠদানের সময় তিনি পিতৃতুল্য মনোভাব নিয়ে শাসন করতেন। তাঁর পাঠদানের সময়ে ছাত্রদের সর্বোচ্ছ উপস্থিতি পরীলক্ষিত হতো। ছাত্র হিসেবে আমরা তাঁর মধ্যে সব সময় ভালবাসা আর জ্ঞান আদান-প্রদানে সুন্দর পরিবেশ দেখতাম। পৃথিবীর আনাছে কানাছে তাঁর অসংখ্য ছাত্র গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব অধিষ্ঠিত আছেন। বৃহত্তর সিলেটের বিভিন্ন মাদ্রাসা ও স্কুল-কলেজ তার অসংখ্য ছাত্র শিক্ষাদানরত আছেন।

সিলেট সরকারী আলিয়া মাদ্রাসায় লেখাপড়া আর ছাত্রবাসে অবস্থানের সময়টুকুতে তাঁর সহচর্য লাভ করি। সত্যকথা বলতে জনাবের নিয়মানুবর্তিতা,
পরিচ্ছন্নতা,ভালবাসা, কাজের সচ্ছতা,দ্বীনের আলোচনা আজো আমাকে অনুপ্রাণিত ও উৎসাহিত করে।
মানুষ গড়ার কারিগর আদর্শ শিক্ষক ফখরউদ্দীন (রহঃ) ২৬মে ২০১১ ইংরেজি বুধবার চট্টগ্রাম বুখারী শরীফের দাওয়াত এবং ইমাম বুখারী (রঃ) এর জীবন ও কর্মের উপর আয়োজিত এক মাহফিলে আলোচনা করে বাড়ীতে ফিরে এবং সেদিন দিবাগত রাতে মৃত্যুর সাথে অলিঙ্গন করে এই পৃথিবী হতে প্রস্থান করেন। অজস্র অনুসারী, ছাত্র-শিক্ষক আর স্বজনরা তাঁর মৃত্যুতে বেদনা আর কষ্টের সাগরে প্লাবিত হোন।মহান মাবুদের কাছে আমাদের প্রিয় এই শিক্ষকের জন্য সর্বোচ্ছ বেহেস্ত কামনা করছি। আমীন।

লেখক: কালামিস্ট ও সমাজ কর্মী।
ফ্রান্স প্রবাসী।