২৫শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং, ১০ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
ads here

আবারো ইরানকে হুমকি দিল আমেরিকা

মঙ্গলবার, ১০/০৭/২০১৮ @ ১২:৪৯ পূর্বাহ্ণ

Spread the love

আবারো ইরানকে হুমকি দিল আমেরিকা

মার্কিন সামরিক বাহিনী অঙ্গীকার করে বলেছে, ইরানের হুমকি সত্ত্বেও পারস্য উপসাগরে তারা তেল রফতানির পথ খোলা রাখবে। ইরানের তেল বিক্রি বন্ধ করা হলে তেহরান হরমুজ প্রণালী দিয়ে কোনো তেল পার হতে দেবে না বলে হুমকি দেয়ার পর মার্কিন সামরিক বাহিনী এ অঙ্গীকার ব্যক্ত করল।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প সম্প্রতি বলেছেন, আন্তর্জাতিক বাজারে ইরানকে তেল বিক্রি করতে দেয়া হবে না এবং এভাবে দেশটির তেল উত্তোলন শূণ্যের কোঠায় আনা হবে।

ট্রাম্পের এ বক্তব্যের পর ইরানের প্রেসিডেন্ট ড. হাসান রুহানি গত মঙ্গলবার সুইজারল্যান্ডের রাজধানী বার্নে দেশটির প্রেসিডেন্ট অ্যালাইন বেরসেতের সঙ্গে এক সংবাদ সম্মেলনে ঘোষণা দিয়েছেন- ইরান যদি হরমুজ প্রণালী দিয়ে তেল বিক্রি করতে না পারলে পারস্য উপসাগর দিয়ে কাউকে তেল বিক্রি করতে দেয়া হবে না।

এ প্রসঙ্গে মার্কিন সামরিক বাহিনী বলেছে, যেখানে আন্তর্জাতিক প্রযোজ্য সেখানে আমরা ঐক্যবদ্ধভাবে জাহাজ চলাচলের স্বাধীনতা নিশ্চিত করব।

মার্কিন সেন্ট্রাল কমান্ডের মুখপাত্র ক্যাপ্টেন বিল আরবান শুক্রবার এক বিবৃতিতে এসব কথা বলেছেন। তার এ বক্তব্য প্রকাশিত হয়েছে মিলিটারি ডট কম-এ।

ইরানি প্রেসিডেন্টের ওই বক্তব্যের পর আইআরজিসি’র প্রধান মেজর জেনারেল মোহাম্মাদ আলী জাফারি বলেছেন, প্রেসিডেন্টের নির্দেশনা বাস্তবায়নে তারা সম্পূর্ণ প্রস্তুত রয়েছেন। হরমুজ প্রণালী দিয়ে সমুদ্রপথে মোট তেলের শতকরা ৩০ ভাগ তেল রফতানি হয়।

দেশজুড়ে ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা মোতায়েন করেছে ইরান

ইরানের বিমান প্রতিরক্ষা ঘাঁটির কমান্ডার ফারযাদ ইসমাইলি বলেছেন, পুরো দেশজুড়ে ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা মোতায়েন রয়েছে। এর ফলে শত্রুরা ইরানের আকাশে প্রবেশের সুযোগ পাবে না।

তেহরানে এক অনুষ্ঠানে ফারযাদ ইসমাইলি বলেন, বিমান প্রতিরক্ষা ঘাঁটির আওতায় রয়েছে ইরানের তিন হাজার ৭০০টি পয়েন্ট। এর ফলে শত্রুর কোনো কিছুই ইরানের আকাশসীমা ভেদ করে আঘাত হানতে পারবে না।

তিনি বলেন, কোনো আলোচনার মাধ্যমে ইরানের প্রতিরক্ষা সক্ষমতা দুর্বল করা যাবে না। শত্রুদের আঙুল ট্রিগারের দিকে এগিয়ে গেলেই এমন জবাব পাবে যে, পরবর্তীতে এই কাজের জন্য অনুশোচনা করবে।

ফারযাদ ইসমাইলি বলেন, পরমাণু সমঝোতা সই হওয়ার পর থেকেই আমেরিকা তা বাস্তবায়নে গড়িমসি করে আসছিল। এ কারণে এখন আমেরিকা ঘোষণা দিয়ে বেরিয়ে যাওয়ার পর তা নিয়ে উদ্বেগের কোনো কারণ নেই। ইরানের বিরুদ্ধে মার্কিন নিষেধাজ্ঞার কারণে মানুষের দৃঢ়তা ও মনোবল আরো বাড়বে। 

ইরানের প্রতিরক্ষামন্ত্রী ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আমির হাতামি হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেছেন, ইরানের দেশের দিকে চোখ তুলে তাকানোর সাহস কারো নেই। ইরানের সশস্ত্র বাহিনী এই মুহূর্তে সর্বোচ্চ প্রস্তুত অবস্থায় রয়েছে।

জেনারেল হাতামি শুক্রবার দক্ষিণ-পশ্চিম ইরানের দেজফুল শহরে এক অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখতে গিয়ে আরো বলেন, সব ধরনের সামরিক সরঞ্জাম নির্মাণে ইরান স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জন করেছে।

ইরানের প্রতিরক্ষামন্ত্রী বলেন, মধ্যপ্রাচ্যের সব দেশের জনগণের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে তার দেশের সশস্ত্র বাহিনী প্রস্তুত রয়েছে। মধ্যপ্রাচ্যসহ গোটা বিশ্বের জনগণ ইরানি জনগণের পাশে রয়েছে। আমেরিকা, ইসরাইল ও তাদের মিত্ররা ছাড়া ইরানের আর কোনো শত্রু নেই।

প্রতিরক্ষা শক্তির ওপর ভর করে ইরান বিশ্বব্যাপী সম্মান অর্জন করেছে বলে উল্লেখ করেন জেনারেল হাতামি। তিনি বলেন, ইরানের সশস্ত্র বাহিনী সর্বোচ্চ নেতার দিকনির্দেশনায় শত্রুর যেকোনো আগ্রাসন প্রতিহত করতে প্রস্তুত রয়েছে।

ইরান এখন ইসরাইলের চোখে নিরাপত্তার জন্য নিকটতম বিপদে পরিণত হয়েছে। ইরান ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র উৎপাদনে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জন করেছে এবং এই ক্ষেপণাস্ত্র দেশটির অন্যতম প্রতিরক্ষা বুহ্য। ইরান প্রতিরক্ষা শিল্পে আত্মনির্ভরশীলতার ওপর গুরুত্বারোপ করেছে।

সামরিক বিবেচনায় ইরান হচ্ছে মধ্যপ্রাচ্যের একক বৃহৎ শক্তি। সম্পূর্ণ দেশীয় প্রযুক্তিতে অত্যন্ত দ্রুতগতির যুদ্ধজাহাজ তৈরি করছে। এসব যুদ্ধজাহাজ ঘণ্টায় ৮০ নটিক্যাল মাইল বা প্রায় দেড়শ কিলোমিটার বেগে চলতে পারবে বলে জানিয়েছে দেশটির নৌবাহিনী।

ইরান বর্তমানে তাদের আকাশ পথে অত্যাধুনিক কিছু যুদ্ধবিমানের সংযোগ ঘটিয়েছে। ১৯৭৯ সাল থেকে ইরানের দু’টি সামরিক বাহিনী রয়েছে। এর একটি নিয়মিত বাহিনী অপরটি বিশেষ বিপ্লবী গার্ড সেনা, যার নিয়ন্ত্রণে রয়েছে ক্ষেপণাস্ত্র কর্মসূচি।

ইরানের রেভ্যুলেশনারি গার্ড বাহিনী বিশেষ প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত। এই গার্ড সেনারা বেশি শক্তিশালী এবং সুসজ্জিত। এই বাহিনীকে সময়ের চাহিদায় আধুনিক করে গড়ে তোলা হয়েছে। ইরানের রয়েছে বিশেষ কুর্দি বাহিনী ও নেভাল বাহিনী, যারা গেরিলা যুদ্ধ করতে সক্ষম।

ইরানের আছে দূরপাল্লার যুদ্ধবিমান, যুদ্ধাস্ত্র, সাবমেরিন, নৌ বাহিনীর ছোট যুদ্ধবিমান এবং শক্তিশালী সব ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র। স্থল যুদ্ধ ও পরিবহনের জন্য ইরানি বাহিনীতে আছে আধুনিক যুদ্ধ হেলিকপ্টার। ইরান ড্রোন বিমান তৈরি করেছে, নতুন নতুন যুদ্ধ জাহাজের প্রবেশ ঘটিয়েছে।

ইরানের রয়েছে নতুন যোগাযোগব্যবস্থা, ভিন্ন ইন্টারনেট ব্যবস্থা, শক্তিশালী রাডার ব্যবস্থা, নতুন স্যাটেলাইট ব্যবস্থা, মনুষ্যহীন আকাশ যান বা ড্রোন। সমর বিশেষজ্ঞরা বলে থাকেন, মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোর মধ্যে ইরানের কাছে রয়েছে সবচেয়ে বৈচিত্র্যময় ও সবচেয়ে বড় দূরপাল্লার ক্ষেপণাস্ত্রের সংগ্রহ।

মধ্যপ্রাচ্যে সকল মার্কিন ঘাঁটি ধ্বংসে সক্ষম ইরান

ইরানের মনুষ্যবিহীন বিমান (ড্রোন) ইসরাইলে প্রবেশ করেছে, তেল আবিবের এমন দাবিকে ‘হাস্যকর’ বলে মন্তব্য করেছে তেহরান। পাশাপাশি দেশটির জন্য ‘নরক’ তৈরি ও মধ্যপ্রাচ্যে সকল মার্কিন ঘাঁটি ধ্বংসের সক্ষমতা রয়েছে বলে হুশিয়ারি জানিয়েছে ইরান।

দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র বাহরাম কাশেমি বলেন, ইরানি ড্রোনের ইসরায়েলে প্রবেশ, দেশটির যুদ্ধবিমান ভূপাতিত করার বিষয়ে ইরানের সংশ্লিষ্টতার দাবি ভিত্তিহীন ও হাস্যকর।

তিনি আরো বলেন, সার্বভৌম রাষ্ট্র হিসেবে নিজের ভূখণ্ডকে রক্ষা ও বিদেশি আক্রমণ মোকাবেলার অধিকার দেশটির রয়েছে (সিরিয়া)। আইন সিদ্ধ একটি সরকারের (সিরিয়া) অনুরোধে ইরানের কর্মকর্তারা সেখানে উপদেষ্টা হিসেবে কাজ করছে।

ইরানের বিপ্লবী বাহিনীর উপ-প্রধান ব্রিগেডিয়ার জেনারেল হোসেন সালামি বলেন, ইসরাইলের জন্য নরক তৈরির সক্ষমতা ইরানের রয়েছে।

 যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞা আরোপের প্রসঙ্গ টেনে তিনি বলেন, সকল প্রতিকূলতার বিপক্ষে অবিচল থাকতে ইরান সমর্থ, এবং ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালিয়ে এ অঞ্চলের সকল মার্কিন ঘাঁটি ধ্বংস করে দিতে পারে। শনিবার ইসরাইলের সেনাবাহিনী জানিয়েছিল, তারা ইরানের একটি ড্রোন সিরিয়া সীমান্তে বিধ্বস্ত করেছে।

ড্রোনটিকে অনুসরণ করে উত্তর সিরিয়ার একটি এলাকায় বিমান হামলাও চালায় দেশটি। এর কয়েক ঘণ্টার মধ্যে ইসরাইলের একটি এফ-১৬ যুদ্ধবিমান ভূপাতিত করে সিরিয়া। ভূপাতিত বিমানটির দু’জন পাইলটই প্রাণে বেঁচেছেন। এর জবাবে ইসরাইল সিরিয়ায় অবস্থিত ইরান ও সিরিয়ার ১২টি স্থাপনায় হামলা চালিয়েছে।
সুত্র: নয়া দিগন্ত।

নিউজ ডেস্কঃ ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের জন্য নির্বিঘ্নে ছুটি কাটানোর ব্যবস্থা করতে বিশ্বব্যাপী হালাল পর্যটন জনপ্রিয় হচ্ছে।
মধ্যপ্রাচ্যঃ বিকল্প নোবেল পুরস্কার’ জিতেছেন কারান্তরীণ থাকা তিন সৌদি নাগরিক। ওই তিনজন সৌদি আরবের বর্তমান
আমেরিকার সাথে সামরিক বৈঠক স্থগিত চীনের চীনের ওপর সামরিক নিষেধাজ্ঞা আরোপ করায় আমেরিকার রাষ্ট্রদূত তলবের
ফাইল ছবি, ভারতের শিলং হাসপাতাল,ঢাকা : বিএনপি নেতা সালাহ উদ্দিন আহমেদের
এক বছরের বেশি সময় ধরে চলমান রোহিঙ্গা সঙ্কট অবসানে তিনটি প্রস্তাব বিশ্বনেতাদের সামনে তুলে ধরেছেন

নিউজ ডেস্কঃ ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের জন্য নির্বিঘ্নে ছুটি কাটানোর ব্যবস্থা করতে বিশ্বব্যাপী হালাল পর্যটন জনপ্রিয় হচ্ছে।
মধ্যপ্রাচ্যঃ বিকল্প নোবেল পুরস্কার’ জিতেছেন কারান্তরীণ থাকা তিন সৌদি নাগরিক। ওই তিনজন সৌদি আরবের বর্তমান
আমেরিকার সাথে সামরিক বৈঠক স্থগিত চীনের চীনের ওপর সামরিক নিষেধাজ্ঞা আরোপ করায় আমেরিকার রাষ্ট্রদূত তলবের
[caption id="attachment_37000" align="alignleft" width="535"] ফাইল ছবি, ভারতের শিলং হাসপাতাল,[/caption]ঢাকা : বিএনপি নেতা সালাহ উদ্দিন আহমেদের
এক বছরের বেশি সময় ধরে চলমান রোহিঙ্গা সঙ্কট অবসানে তিনটি প্রস্তাব বিশ্বনেতাদের সামনে তুলে ধরেছেন

অনলাইন জরিপ

?????
8 Vote

Cricket Score

Poll answer not selected