, মঙ্গলবার, ২৬ মে ২০২০

Avatar admin

ধর্ষণ মামলায় বিপর্যস্ত রোলানদো দারস্থ হলেন যার নিকট

প্রকাশ: ২০১৮-১০-০৫ ২০:২২:০০ || আপডেট: ২০১৮-১০-০৫ ২০:২২:০০

Spread the love

ধর্ষণ মামলায় বিপর্যস্ত রোলানদো দারস্থ হলেন যার নিকট
সংগৃহীত ছবি।
ধর্ষণ মামলা লড়তে ‘তারকাদের আইনজীবী’ খ্যাত ডেভিড চেশনফের দ্বারস্থ হয়েছেন পর্তুগিজ তারকা ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো

যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক মডেল ক্যাথরিন মায়োরগার আনা ধর্ষণের অভিযোগ আবারও অস্বীকার করেছেন করেছেন ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। তবে শুধু অভিযোগ অস্বীকার করেই তিনি ক্ষান্ত হননি। মামলা লড়তে খ্যাতনামা একজন আইনজীবীরও দ্বারস্থ হয়েছেন জুভেন্টাস ফরোয়ার্ড। তিনি ‘তারকাদের আইনজীবী’খ্যাত ডেভিড চেশনফ। যুক্তরাষ্ট্র তো বটেই আন্তর্জাতিক অঙ্গনে কিছু অপরাধ মামলার লড়াইয়ে হাত পাকানোর ব্যাপারে খ্যাতি কুড়িয়েছেন চেশনফ।

লাস ভেগাস পুলিশ এই সপ্তাহে রোনালদোর বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা পুনরুজ্জীবিত করার পর চেশনফের দ্বারস্থ হলেন রোনালদো। ঘটনাটা বেশ পুরোনো। ক্যাথরিন মায়োরগার অভিযোগ, ২০০৯ সালে লাস ভেগাসের এক হোটেলে তাঁকে ধর্ষণ করেছিলেন ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। গত মাসে নেভাদার জেলা আদালতে রোনালদোর বিরুদ্ধে মামলা করেন মায়োরগা। এর প্রতিক্রিয়ায় পর্তুগালের অধিনায়কের দাবি ধর্ষণের মতো জঘন্য একটি অপরাধ তিনি করতেই পারেন না!

ক্রীড়াঙ্গন ও শোবিজে অনেক বড় বড় তারকার মামলা লড়েছেন চেশনফ। কিংবদন্তি মুষ্টিযোদ্ধা মাইক টাইসন, টেনিসে আন্দ্রে আগাসি ও বাস্কেটবলে শাকুইল ও’নিলের মামলা লড়েছেন তিনি। শোবিজে তাঁর সাহায্য পেয়েছেন অভিনেতা লিওনার্দো ডি ক্যাপ্রিও, জেমি ফক্স, প্যারিস হিলটন। সংগীতাঙ্গনে ব্রুনো মার্স আর মাইকেল জ্যাকসনের পরিবারকেও আইনি সহায়তা দিয়েছেন চেশনফ। এ ছাড়া খ্যাতনামা জাদুশিল্পী ডেভিড কপারফিল্ড চেশনফের আইনি সহায়তা নিয়েছেন। লাস ভেগাসেই ‘চেশনফ অ্যান্ড শো ফার্ম’ নামে তাঁর অফিস—আন্তর্জাতিক অঙ্গনে যা অন্যতম সেরা আইনি সহায়তা কেন্দ্র হিসেবে স্বীকৃত।

এদিকে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম ‘সান’ জানিয়েছে, ২০০৫ সালেও রোনালদোর বিপক্ষে লন্ডনে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছিল। মধ্য লন্ডনের স্যান্ডারসন হোটেলে দুজন মহিলা রোনালদো এবং আর এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে এই অভিযোগ করেছিলেন। এর ভিত্তিতে সন্দেহভাজন হিসেবে গ্রেপ্তার হয়েছিলেন রোনালদো। স্কটল্যান্ড ইয়ার্ড তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে ছেড়ে দিয়েছিল। রোনালদো তখন কুড়ি বছরের তরুণ। খেলতেন ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে। মায়োরগার আইনজীবী লেসলি স্টোভাল জানিয়েছেন, লন্ডনে রোনালদোর বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ আনা সেই মহিলার সঙ্গে তিনি যোগাযোগ করতে চান। ‘সান’কে স্টোভাল বলেন, ‘আমি এখন শুধু ইংল্যান্ডের একজনের কথা ভাবছি, যে যৌন নিপীড়নের অভিযোগ তুলেছিল। তাঁর সঙ্গে কথা বলতে চাই। আমি যোগাযোগ করতে আগ্রহী। উৎসঃ প্রথম আলো ।

Logo-orginal