, বুধবার, ১৭ জুলাই ২০১৯

admin

এক রাতের আগুনে ঝরে গেল ৮ প্রাণ, জয়পুর হাটে শোকের ছায়া

প্রকাশ: ২০১৮-১১-০৮ ১২:০৩:৩২ || আপডেট: ২০১৮-১১-০৮ ১২:০৩:৩২

Spread the love

এক রাতের আগুনে ঝরে গেল ৮ প্রাণ, জয়পুর হাটে শোকের ছায়া
ছবি, যুগান্তর।

জয়পুরহাট শহরে বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট থেকে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় বাবা দুলাল হোসেনও (৭১) মারা গেলেন। আট সদস্যের পরিবারের আর কেউ বেঁচে রইল না।

বৃহস্পতিবার সকালে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নেয়ার পথে চারজন ও পরে আরও একজনের মৃত্যু হয়। এর আগে বুধবার রাতে জয়পুরহাট শহরের আরামনগর এলাকায় বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিটের আগুনে পুড়ে ঘটনাস্থলে তিনজন নিহত হন।

নিহতরা হলেন- গৃহকর্তা আবদুল মোমিন (৩৮), স্ত্রী পরীনা বেগম (৩২), তার দুই যমজ মেয়ে হাসি ও খুশি (১২), ছোট ছেলে নূর (৬), মোমিনের বাবা দুলাল হোসেন (৭১), মা মোমেনা বেগম (৬২) ও তার মেয়ে বৃষ্টি (১৪)।

জয়পুরহাট ফায়ার সার্ভিস ও পুলিশ জানায়, রাত ৯টার দিকে জয়পুরহাট শহীদ জিয়া ডিগ্রি কলেজের অদূরে ব্যবসায়ী আবদুল মোমিনের বাড়িতে হঠাৎ আগুন ছড়িয়ে পড়ে। এতে আবদুল মোমিন, তার মা মোমেনা বেগম ও মেয়ে বৃষ্টি ঘটনাস্থলেই মারা যান।

এ সময় আরও পাঁচ সদস্য দগ্ধ হন। তাদের আশঙ্কাজনক অবস্থায় জয়পুরহাট জেলা হাসপাতালে নেয়া হয়। পরে তাদের ঢামেক হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে স্থানান্তর করা হয়। সেখানে যাওয়ার পথে চারজন ও পরে আরও একজনের মৃত্যু হয়।

এ অগ্নিকাণ্ডে আবদুল মোমিনের টিনশেডের পাকা বাড়ির চারটি ঘর ও তার বিভিন্ন আসবাবপত্র পুড়ে গেছে।

জয়পুরহাট ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের ইন্সপেক্টর সিরাজুল ইসলাম জানান, প্রাথমিকভাবে গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে এ অগিকাণ্ডের সূত্রপাত বলে ধারণা করা হলেও এটি বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট থেকে ঘটেছে।

জয়পুরহাট সদর থানার ওসি সিরাজুল ইসলামবলেন, খবর পেয়ে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিস সদস্যরা ঘটনাস্থলে গিয়ে উদ্ধারকাজ শুরু করেন। ঘটনাস্থলে একই পরিবারের তিনজন মারা যান।

দগ্ধ পাঁচ সদস্যকে প্রথমে জয়পুরহাট আধুনিক জেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে অবস্থার অবনতি হলে তাদের ঢামেক হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে স্থানান্তর করা হয়। সেখানে নেয়া পথে চারজন ও পরে আরও একজনের মৃত্যু হয়। উৎসঃ যুগান্তর।

কুড়িগ্রামের উলিপুরে বন্যার পানিতে তলিয়ে যাওয়া স্বজনদের দেখতে গিয়ে পৃথক দুইটি ঘটনায় ছয়জনের মৃত্যু হয়েছে।
সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ায় ট্রেনের ধাক্কায় একটি মাইক্রোবাসের বরসহ ৯ জন যাত্রী নিহত হয়েছেন। নিহত বরযাত্রী সুমনের
ইসমাঈল হোসেন নয়ন,রাঙ্গুনিয়া প্রতিনিধিঃ চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়ায় ইছামতী নদীর স্রোতে ভেসে গিয়ে নিখোঁজ তরুন দিদারুল আলম
সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ায় রেলক্রসিংয়ে ট্রেন ও মাইক্রোবাসের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে ৯ জন নিহতের খবর পাওয়া
কক্সবাজারঃ টানা ভারী বর্ষণ ও উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে কক্সবাজারের চকরিয়া-পেকুয়ায় আবারো ভয়াবহ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Logo-orginal