, বৃহস্পতিবার, ৬ আগস্ট ২০২০

Avatar admin

ফটিকছড়ির অন্ধ দুই বোনের ভালবাসার গল্প

প্রকাশ: ২০১৮-১২-৩০ ০৯:৪১:০৪ || আপডেট: ২০১৮-১২-৩০ ০৯:৪১:০৪

Spread the love

চট্টগ্রামঃ ছয় বোনের পরিবারে সবাই অন্ধ, অনেক আগে মারা যায় চার বোন, বেঁচে আছে দুই বোন লাইলা ও ছখিনা, তাদের ভালবাসার বন্ধন বড়ই মজবুত, লাইলাকে ছেড়ে ছখিনা যেমন কোথাও যায় না, আবার ছখিনাকে ছেড়ে লাইলাও কোথাও যেতে রাজি না ।

দুইবোনের এমন মমতা এলাকার মানুষের নিকট যেন এক গল্প ।

চট্টগ্রাম জেলার ঐতিহাসিক মাইজভান্ডার দরবারের জন্য বিখ্যাত ফটিকছড়ি উপজেলার সেই মাইজভান্ডারে আসা যাওয়ার সড়ক পথে নিয়মিত দেখা মিলে অন্ধ বোনদ্বয় লাইলা ও ছখিনার ।

সড়কের তেলপারই পুলের পশ্চিম পার্শ্বের রাস্তার দক্ষিণে দু’বোন এক সাথে বসেন। পথচারীদের দান দক্ষিনায় অন্ধ দু’বোনের জীবন চলে।

একই এলাকার কোরবান আলী হাজী বাড়ীর রমজান আলীর মেয়ে লায়লা ও ছখিনা। লাইলা’রা ৬ বোন।৬ বোনই জন্মগত ভাবে অন্ধ।চার বোন মারা গেছেন।

বিয়ের প্রস্তাব এলেও লাইলা ছখিনা’কে ছেড়ে যাবেনা, ছখিনাও লাইলা’কে ছেড়ে যাবেনা।অন্ধ দু’বোন এখানে কাটিয়ে দেবেন সারা জীবন। কেউ তাঁদের আলাদা করতে পারবেনা।

অন্ধ দু’বোনের ভালবাসা সে এক মহাকাব্য হতে পারে।

কথা হল লাইলা ও ছখিনার সাথে।দয়াবান মানুষের প্রতি তাঁরা কৃতজ্ঞচিত্তে কৃতার্থ।যা পাওয়া যায় তা দিয়ে সংসার চলে কিনা জিজ্ঞাস করলে তাঁরা বলেন, আমাদের কি সংসার আছে ? আমরা হায়াত কাটাই মাত্র।মন্ত্রী মরে যাওয়ার পর (প্রয়াত রফিকুল আনোয়ার এমপি) বড় টাকা তেমন কেউ দেয় না।

আমার বাবা দ্বিতীয় বিয়ে করেছেন, সে ঘরে আমাদের একটা ভাই আছে। ভাইটার জন্য দোয়া করবেন সবাই । #সংগৃহীত ফটিকছড়ি পেইজ থেকে ।

Logo-orginal