, বৃহস্পতিবার, ১৭ জানুয়ারী ২০১৯

admin

শেখ হাসিনার ছবি বিকৃতি” এক যুবকের সাত বছরের কারাদণ্ড

প্রকাশ: ২০১৯-০১-০৯ ২১:১৩:২৬ || আপডেট: ২০১৯-০১-০৯ ২১:১৩:২৬

Spread the love

ঢাকা: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছবি বিকৃত করে বিভিন্ন মোবাইল ফোনে ছড়িয়ে দেয়ার অভিযোগে ২০১৩ সালে করা এক মামলায় মোহাম্মদ মনির নামে এক মোবাইল ফোন ব্যবসায়ী যুবককে সাত বছরের সশ্রম কারাদণ্ডের আদেশ দিয়েছে সাইবার ট্রাইব্যুনাল।

বুধবার (৯ জানুয়ারি) বাংলাদেশ সাইবার ট্রাইব্যুনালের বিচারক মোহাম্মাদ আস সামশ জগলুল হোসেন এ রায় ঘোষণা করেন। কারাদণ্ডের পাশাপাশি তাকে ১০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড অনাদায়ে এক মাসের কারাদণ্ডের আদেশ দেন বিচারক।

মামলার আসামিরা হলেন- আলমগীর হোসেন, মোহাম্মদ মনির, শীল সুব্রুত ও শ্রী প্রভাত চন্দ্র সরকার।
অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় আলমগীর হোসেন ও শীল সুব্রতকে খালাস প্রদান করেছেন ট্রাইব্যুনাল। আর শ্রী প্রভাত চন্দ্র সরকারকে ট্রাইবুনালের অভিযোগ গঠনের সময়ই অব্যাহতি দেয়া হয়।

মামলার অভিযোগ থেকে জানা যায়, ২০১৩ সালের ১০ নভেম্বর মানিকগঞ্জ জেলার সাটুরিয়া থানার উত্তর রৌহান গ্রামের লাল মিয়ার ছেলে আলমগীর হোসেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, ভারতের সাবেক প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং ও বাংলাদেশের সাবেক রাষ্ট্রপতি জিল্লুর রহমানের বিকৃতি করা অশ্লীল ছবি বিভিন্ন জনকে দেখাতে থাকেন।

গোপন সংবাদ পেয়ে সাটুরিয়া থানা পুলিশ আলমগীরকে গ্রেফতার করে। গ্রেফতারের পর আলমগীর বলেন যে, তিনি এই ছবিগুলো টাঈাইল জেলার নাগরপুর থানার কেদারপুর বাজারের মনির টেলিকম থেকে নিয়েছেন।

এরপর অভিযান চালিয়ে মনিরকে গ্রেফতার করে সাটুরিয়া থানা পুলিশ। এ ঘটনায় সাটুরিয়া থানার উপ-পরিদর্শক আব্দুস ছালাম বাদী হয়ে চারজনের বিরুদ্ধে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি আইনের ৫৭ (২) ধারায় একটি মামলা করেন।

২০১৪ সালের ২০ মার্চ সাটারিয়া থানার পুলিশ পরিদর্শক আলমগীর হোসেন এই চারজনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল করেন।

২০১৫ সালের ১৭ ফেব্রুয়ারি আলমগীর হোসেন, মোহাম্মদ মনির, শীল সুব্রুতের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেন সাইবার ট্রাইব্যুনাল। তখন অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় শ্রী প্রভাত চন্দ্র সরকারকে অব্যাহতি প্রদান করেন। মামলায় বিচারকালে ১৮ সাক্ষীর মধ্যে বিভিন্ন সময়ে ১০ জন ট্রাইব্যুনালে সাক্ষ্য প্রদান করেন। মনির নিজের পক্ষে দুইজন সাফাই সাক্ষী আদালতে উপস্থাপন করেন।উৎসঃ আরটিএনএন।

বগুড়ার নন্দীগ্রাম উপজেলায় এক আওয়ামী লীগ কর্মীর ছেলেকে ইয়াবাসহ গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গ্রেপ্তার হওয়া ব্যক্তির
লজ্জা-শরম থাকলে নির্বাচনে শোচনীয় পরাজয়ের পর মির্জা ফখরুলের পদত্যাগ করা উচিত ছিল বলে মন্তব্য করেছেন
সৌদি আরবে ৩ বাংলাদেশির হাত-পা কেটে দেয়ার রায় দিয়েছেন দেশটির আদালত। গোয়েন্দা পুলিশের কর্মকর্তা সেজে
ইতালির উত্তরে নাপলীতে দীপু মন্ডল নামে (২৪) এক বাংলাদেশির লাশ পাওয়া গেছে। ১৪ জানুয়ারী পালমা
অশ্রুর পরিবর্তে হাসি ফিরিয়ে দিল পুলিশ। পুলিশ যে চেষ্টা করলে অনেক কিছুই করতে পারে তার

Logo-orginal

আর টি এম মিডিয়া কর্তৃক প্রকাশিত