, সোমবার, ১৯ আগস্ট ২০১৯

rtm

শাপলা চত্বরে শহীদ ও আহতদের জন্য দেশবাসীকে দোয়ার আহবান আল্লামা বাবুনগরীর

প্রকাশ: ২০১৯-০৫-০৫ ০৭:৩৯:১১ || আপডেট: ২০১৯-০৫-০৫ ০৭:৩৯:১১

Spread the love

হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের মহাসচিব আল্লামা জুনাইদ বাবুনগরী ও সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা আজিজুল হক ইসলামাবাদী এক যৌথ বিবৃতিতে ২০১৩ সালে ৫ মে শাপলা চত্বরে শহীদ ও আহতদের জন্য দেশবাসীর প্রতি দোয়া করার আহবান জানিয়ে বলেছেন, কতিপয় নাস্তিক আল্লাহ, রাসূল, পবিত্র কুরআন-হাদীস অবমাননা এবং ইসলামের প্রতীকসমূহের ওপর জঘণ্যতম আক্রমন করেছে, ইসলাম, মুসলমান ও আলিম-ওলামাদের হেয়প্রতিপন্ন করার হীন চেষ্টায় চালিয়েছে, মাদারিসে দীনিয়্যার বিরুদ্ধে হরদম মিথ্যা, ভিত্তিহীন ও বিভ্রান্তিকর বক্তব্য দিয়ে জাতিকে বিভক্ত করার অপতৎপরতা চালিয়েছে, তখনই তাদের সর্বোচ্চ শাস্তির দাবীতে শান্তিপূর্ণভাবে হেফাজতে ইসলাম ৫ মে ২০১৩ সালে রাজধানী ঢাকা অবরোধ করেছিল। যা বাংলাদেশের হক্কানী ওলামা-পীর-মাশায়েখ, আশেকে রাসূর সা. ও দেশপ্রেমিক ঈমানদার জনতার জন্য রক্তঝরা এক ঐতিহাসিক দিন। কেননা ঐদিনের ট্রাজেডি মুসলিম উম্মাহর জন্য অত্যন্ত মর্মান্তিক, মর্মন্তুদ ও বেদনাদায়ক।

হেফাজতে ইসলাম নেতৃদ্বয় বলেন, হেফাজত কাফেলার মাতৃভূমি কিন্তু বাংলাদেশ। তারা এদেশের নাগরিক, আইন বিরোধী কোন কর্মকা-ে তারা জড়িত নয়, কোন দাগী আসামিও নয়, আলেমরা শান্তি প্রিয়, সমাজে তারা মর্যদাশালী। এরা কোন অন্যায় করেনা। আল্লাহর অলিদের বিরুদ্ধে যারা বিদ্বেষ পোষণ করে, অন্যায় জুলুম করে অল্লাহ তাদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করেন। হেফাজত নেতৃদ্বয় বলেন, ২০১৩ সালে ৫ই মে ঢাকার শাপলা চত্বরে যারা রক্ত দিয়েছেন, যারা আহত হয়েছেন, তারা কেবল মহান আল্লাহ ও প্রিয় নবী হযরত মোহাম্মদ সা. এর ভালবাসা নিয়ে ইসলামের জন্য জীবন উৎসর্গ করেছেন। তাদের রক্ত বৃথা যেতে পারে না। হেফাজতে ইসলাম যে ১৩ দফা দাবি নিয়ে সেদিন ময়দানে নেমেছিল সে দাবি আজও পূরণ হয়নি। বরং মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি অব্যাহত রয়েছে। ১৩ দফা দাবি আদায়ের ঈমানি আনদোলন ও ইসলামবিদ্বেষী নাস্তিক- মুরতাদদের আস্ফালন বন্ধ না হওয়া পর্যন্ত আমাদের সংগ্রাম চলবে।

তারা বলেন, ঈমান রক্ষার আন্দোলনে যারা শাহাদত বরণ করেছেন তারা আমাদেরই ভাই, তাদেরকে আমরা ভুলে যেতে পারি না। শহীদদের রক্তের বিনিময়ে বাংলার জমিনে একদিন ইসলামের বিজয় পতাকা উড্ডিন হবে। যারা সেদিন শাহাদাত বরণ করেছেন আমরা দোয়া করি আল্লাহ তাদেরকে জান্নাতের উচ্চ মাকাম দান করুন। আর যারা আহত হয়েছেন আল্লাহ তাদেরকে উত্তম প্রতিদান দিবেন। তারা দেশবাসীকে শহীদদেও রূহের মাগফিরাত কামনা ও আহতদের পরিপূর্ণ সুস্থতার জন্য দোয়া করার অনুরোধ জানান

চট্টগ্রামের সাতকানিয়ায় বন্যা পরিস্থিতির চরম অবনতি হয়েছে। পুরো সাতকানিয়া এখন বন্যার পানিতে ভাসছে। সাতকানিয়া পৌরসভাসহ
জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য, প্রবীণ রাজনীতিবিদ ও সমাজসেবক, বিশিষ্ট আলেমেদ্বীন মাওলানা মুমিনুল হক চৌধুরী
এই মুহূর্তে চট্টগ্রামে জড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি হচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Logo-orginal