, মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০১৯

admin

সাত দশকেও ফিলিস্তিনকে স্বাধীন হয়নি, ওআইসি লক্ষ্য অর্জন করতে পারেনি: শেখ হাসিনা

প্রকাশ: ২০১৯-০৬-০২ ১৩:২৭:৫০ || আপডেট: ২০১৯-০৬-০২ ১৩:২৭:৫০

Spread the love

অর্গানাইজেশন অব ইসলামিক কোঅপারেশন- ওআইসি যে লক্ষ্য নিয়ে গঠিত হয়েছিল, তা যে এখনো পূরণ হয়নি মুসলিম দেশগুলোকে সে কথা আবারো স্মরণ করিয়ে দিলেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

শনিবার (১জুন) সৌদি আরবের মক্কার সাফা প্যালেসে ওআইসির চতুর্দশ সম্মেলনে দেয়া বক্তব্যে তিনি বলেন, আমাদের ফিলিস্তিনি ভাই ও বোনদের জমি ও সার্বভৌমত্বের অধিকার ফিরিয়ে আনতে, উম্মাহর মর্যাদা ও অধিকার রক্ষা এবং মুসলিম বিশ্বের জনগণের মধ্যে একাত্মতা ও সহযোগিতা জোরদার করার জন্য লক্ষ্যে ওআইসির জন্ম হয়েছিল। কিন্তু সাত দশক পরেও ফিলিস্তিনের সমস্যা এখনও বিদ্যমান এবং এ বিষয়ে মুসলিম উম্মাহ এখনও বিভক্ত।

শেখ হাসিনা বলেন, বর্তমান বিশ্বে রয়েছে অর্থনীতি, বাস্তুতন্ত্র ও নিরাপত্তার চ্যালেঞ্জ। এসব মোকাবেলায় ওআইসিকে একটি বিস্তৃত কৌশল গড়ে তুলতে হবে, যার মধ্যে সদস্য রাষ্ট্রগুলো একে অন্যের জন্য কাজ করতে পারে।

তিনি বলেন, পৃথিবীর কৌশলগত সম্পদের এক তৃতীয়াংশেরও বেশি এবং যুবশক্তির বেশিরভাগই রয়েছে আমাদের হাতে। আমাদের নিজেদের সমস্যা নিজেদেরেই সমাধান করার সমক্ষতা থাকা উচিত।

দরিদ্রকে সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ উল্লেখ করে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী বলেন, এ অসঙ্গতি মোকাবেলার জন্য যৌথ ইসলামী কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে ওআইসি-২০২৫ কর্মসূচি বাস্তবায়ন করতে হবে।

ওআইসির ইন্সটিটিউশনগুলোকে বিশেষ করে ইসলামিক উন্নয়ন ব্যাংকের নীতিমালা ও অনুশীলনগুলোকে ওআইসির এজেন্ডার সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ হওয়ার ওপরও জোর দেন তিনি।

তিনি আরও বলেন, পণ্য বাজারজাত ও পরিষেবায় ধারণা ও উদ্ভাবন আজ ইসলামী বিশ্বের প্রয়োজন।

ওআইসির ৫৭টি সদস্য রাষ্ট্রের বাদশাহ, রাষ্ট্র ও সরকার প্রধান এবং প্রতিনিধরা অংশ নিচ্ছেন এই সম্মেলনে।

শুক্রবার রাতে শুরু হওয়া এই শীর্ষ সম্মেলনে অতিথিদের স্বাগত জানান সৌদি আরবের বাদশাহ সালমান বিন আবদুল আজিজ। শেখ হাসিনা সম্মেলনস্থলে প্রবেশ করলে বাদশাহ তাকে স্বাগত জানিয়ে শুভেচ্ছা বিনিময় করেন।

সম্মেলনের শুরুতেই বক্তব্য দেন সৌদি বাদশাহ। সংস্থার মহাসচিবের বক্তব্যের পর রাষ্ট্র ও সরকার প্রধানরা বক্তব্য দেন।

মিয়ানমারের নির্যাতিত রোহিঙ্গা মুসলমানরা যেন তাদের অধিকার নিয়ে বসবাস করতে পারে, তা নিশ্চিত করতে ওআইসিভুক্ত দেশগুলোতে এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

শেখ হাসিনা বলেন, সম্পদের সীমাবদ্ধতা সত্ত্বেও মিয়ানমার থেকে জোরপূর্বক বাস্তুচ্যুত ১১ লাখেরও বেশি রোহিঙ্গা মুসলমানদের আশ্রয় দিয়েছে বাংলাদেশ। কিন্তু মিয়ানমার রাখাইন অঞ্চলে একটি সহায়ক পরিবেশ তৈরির প্রতিশ্রুতি মেনে চলতে ব্যর্থ হওয়ায় রোহিঙ্গাদের সম্মানের সঙ্গে প্রত্যাবর্তন এখনও অনিশ্চিত।

সাবেক রাষ্ট্রপতি, জাতীয় সংসদের বিরোধী দলীয় নেতা ও জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদকে শেষবারের
কুয়েত সিটিঃ ভারতীয় পার্সপোর্ট নিয়ে কুয়েতে প্রবেশ করার চেষ্টায়য় মোস্ট ওয়ান্টেড আসামী এক বাংলাদেশী নাগরিককে
ইহুদিবাদী ইসরাইলের একটি অস্ত্র কারখানায় আগুন লেগে ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে। অনেক দূর থেকেই ধোয়ার
সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ায় ট্রেনের ধাক্কায় একটি মাইক্রোবাসের বরসহ ৯ জন যাত্রী নিহত হয়েছেন। নিহত বরযাত্রী সুমনের
সাতকানিয়াঃ চট্টগ্রামের সাংগু নদীর স্রোতে ভেঙে পড়ল তিন তলা ভবন। ভবনটির মালিক জনাব খলিলুর রহমান

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Logo-orginal