, মঙ্গলবার, ২ জুন ২০২০

Avatar admin

সীমান্তে বিজিবি-বিএসএফ গুলাগুলি” ১ ভারতীয় বর্ডার গার্ড নিহত” সীমান্তে উত্তেজনা

প্রকাশ: ২০১৯-১০-১৭ ১৮:৩২:০১ || আপডেট: ২০১৯-১০-১৭ ১৮:৪৩:৪২

Spread the love

ভারতীয় কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, বৃহস্পতিবার পশ্চিমবঙ্গে দুই দেশের আন্তর্জাতিক সীমান্তে বাংলাদেশের বিজিবি সেনার গুলিতে এক জওয়ান নিহত হয়েছে।

দেশটির হিন্দুস্থান টাইমস জানিয়েছে বাংলাদেশ ও ভারতের সীমান্তে টইলরত বর্ডার গার্ড বিজিবি ও বিএসএফের মধ্যে মারা পড়ে একজন, আহত হয় আরও এক ভারতীয় সৈন্য।

এইদিকে বাংলাদেশী কতৃপক্ষের কোন বক্তব্য এখনো পাওয়া না গেলেও সীমান্ত জুড়ে রেড এলার্ট জারি করেছে বিএসএফ।

বিএসএফ কর্মকর্তারা বলছে,পশ্চিমবঙ্গের মুর্শিদাবাদ জেলার সীমান্তে বিএসএফের হেড কনস্টেবলকে হত্যা করা হয়েছে।

সুত্রে প্রকাশ, মুর্শিদাবাদের জলঙ্গির চর পাইকমারির জিরো পয়েন্টে বিএসএফ-এর সঙ্গে বিজিবি-র গুলি বিনিময়ের ঘটনা ঘটেছে। এতে গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা গিয়েছে এক বিএসএফ জওয়ানের। নিহত বিএসএফ সদস্যের নাম বিজয় ভান। আহত হয়েছেন আরও একজন। আহত জওয়ানের নাম রাজবীর সিং। তিনি বিএসএফ-এর হেড কনস্টেবল। বর্তমানে মুর্শিদাবাদ মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন তিনি।

জানা গিয়েছে, মাছ ধরা নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে ঝামেলা বাধে। চর পাইকমারিতে মাছ ধরতে গিয়েছিলেন কয়েকজন ভারতীয় মৎস্যজীবী। স্থানীয়রা জানিয়েছেন, মাছ ধরতে ধরতে তাঁরা জিরো পয়েন্টে অর্থাৎ ভারত-বাংলাদেশ সীমান্ত এলাকায় চলে গিয়েছিলেন। অভিযোগ, সেইসময়ই ৩ জন ভারতীয় মৎস্যজীবীকে আটক করে বিজিবি (Border Guard Bangladesh)। এরপরই তাঁদেরকে উদ্ধার করতে যান বিএসএফ জওয়ানরা। জানা গিয়েছে, তখনই বিএসএফ-এর সঙ্গে বিজিবি-র সংঘর্ষ শুরু হয়।

বিএসএফ-বিজিবির ফ্ল্যাগ মিটিংয়ের আগেই গুলাগুলি লেগে যায়। ঘটনাস্থলেই মাথায় গুলি লেগে নিহত হয় ওই বিএসএফ সদস্য। আহত হন রাজবীর সিং নামে একজন হেড কনস্টেবল। বিএসএফ-এর ১১৭ নম্বর ব্যাটেলিয়নের হেড কনস্টেবল রাজবীর সিং। বর্তমানে তিনি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। বিজিবি-র এভাবে গুলি চালনার ঘটনায় তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেছে বিএসএফ। শেষ পাওয়া খবর অনুযায়ী, প্রণব মণ্ডল নামে একজন ভারতীয় এখনও বিজিবি-র হেফাজতে রয়েছেন। বাকি দুজনকে উদ্ধার করতে পেরেছে বিএসএফ। ঘটনাস্থলে পৌঁছেছেন বিএসএফের উচ্চপদস্থ কর্তারা।

প্রাথমিক তথ্য থেকে জানা গেছে যে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) সৈন্যরা এই গুলি চালিয়েেছে, দাবী বিএসএফের।

তবে বিজিবির কোন বক্তব্য এখনো পাওয়া যায়নি।

একে/১৭১০১৯

Logo-orginal