, শুক্রবার, ১০ জুলাই ২০২০

Avatar admin

নবীর আদর্শ চরিত্রবান ও দক্ষ মানুষ সৃষ্টি করতে পারে; রাঙ্গুনিয়ায় আল্লামা তাহের শাহ(মু.)

প্রকাশ: ২০১৯-১১-২১ ২১:৪৬:৩৭ || আপডেট: ২০১৯-১১-২১ ২১:৪৬:৩৭

Spread the love

চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়ায় পবিত্র ঈদ-এ মিলাদুন্নবী উপলক্ষে আয়োজিত স্মরণকালের বৃহত্তম সুন্নী সমাবেশে আল্লামা সৈয়্যদ মুহাম্মদ তাহের শাহ বলেছেন, নবী প্রেম আদর্শ চরিত্রবান ও দক্ষ মানুষ সৃষ্টি করতে পারে।

আমাদের দেহ এবং প্রাণ খুব অল্প সময়ের জন্য একত্রিত আছে। আর এই সংক্ষিপ্ত সময়টিই এবাদত বন্দেগীর একমাত্র সুযোগ। যা কবরে হাশরে আর ফিরে পাওয়া যাবেনা।

এ জন্য নিজেদেরকে মন্দ লোক থেকে রক্ষা করতে হবে। পাশাপাশি দ্বীনি খেদমত করা অতীব জরুরী। তাওবার মাধ্যমে জীবনের সকল পাপ মোচন হয়ে যায় বটে, কিন্তু জালেম ও অপরের হক্ব ধ্বংসকারী, আত্মসাতকারীরা কোন পার পাবেনা। যতক্ষণ না তিনি মজলুমের কাছে ক্ষমা না চাইবে কিংবা হক্ব আদায় না করবে। তিনি নব দীক্ষিতদেরকে নির্দেশ দেন যেন সংশ্লিষ্ট ক্ষতিগ্রস্তদের কাছ থেকে ক্ষমা চেয়ে কিংবা হক্ব পরিশোধ করে এ ধরনের পাপীদের পাপ মোচন করে নতুনভাবে তরিক্বত জীবন শুরু করে দুনিয়া ও আখিরাতকে উজ্বল করেন এবং দেশ সমাজ, মুসলিম মিল্লাতকে অশান্তি ও হানাহানি থেকে রক্ষা করার কাজে আত্মনিয়োজিত হন। যেসব কাজে আল্লাহ ও রাসূল নারাজ সেসব কাজ থেকে দূরে থাকতে হবে।

বৃহস্পতিবার (২১ নভেম্বর) বিকেলে রাঙ্গুনিয়া সরকারি কলেজ ও রাঙ্গুনিয়া আদর্শ বহুমুখী পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে মাদ্রাসা এ তৈয়বিয়া অদুদিয়া সুন্নিয়া পরিচালনা কমিটি ও গাউসিয়া কমিটি রাঙ্গুনিয়া উপজেলা শাখার আয়োজনে সুন্নি সমাবশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। বিশেষ অতিথি ছিলেন শাহ্জাদা আল্লামা সৈয়দ মুহাম্মদ কাশেম শাহ্ ও শাহ্জাদা আল্লামা সৈয়দ হামেদ শাহ (মু:জি:আ)। সুন্নি সম্মেলন প্রস্তুুতি কমিটির আহবায়ক সাদেকুন নূর সিকদার এর সভাপতিত্বে ও রাঙ্গুনিয়া সরকারি কলেজের ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ আবদুল মাবুদ’র সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন আনজুমান এ রহমানিয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া ট্রাস্টের সিনিয়র সহসভাপতি আলহাজ¦ মুহাম্মদ মুহসিন, সেক্রেটারী জেনারেল আলহাজ¦ মুহাম্মদ আনোয়ার হোসেন, আলহাজ¦ সিরাজুল হক, গিয়াস উদ্দিন সাকের, অধ্যাপক কাজী শামসুর রহমান, পেয়ার মুহাম্মদ কমিশনার, শায়খুল হাদিস আল্লামা মুফতি মুহাম্মদ ওবাইদুল হক নঈমী, আল্লামা আবুল কাশেম ফজলুল হক, হাফেজ মুনিরুজ্জামান, জসিম উদ্দিন আজহারী, অধ্যক্ষ আবু তৈয়ব চৌধুরী, মাও. নুরুল আলম, আব্দুল মন্নান রেজভী, মাও. ইলিয়াছ আহমদ, মাও. রমজান আলী, অধ্যক্ষ নজরুল ইসলাম, অধ্যক্ষ আজিজুল হক, অধ্যক্ষ নাছির উদ্দিন তৈয়বী, উপাধ্যক্ষ মুফতি মুহাম্মদ মুজিবুর রহমান নেজামী, চট্টগ্রাম জেলা পরিষদ সদস্য কামরুল ইসলাম চৌধুরী, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম, সাবেক বোয়ালখালী ভাইস চেয়ারম্যান কাজী ওবাইদুল হক হক্কানী, রাঙ্গুনিয়ার আকতার হোসেন, গাজী আবুল কালাম বয়ানী, তৈয়্যবিয়া মাদ্রাসা পরিচালনা কমিটির মাহাবুব ছাফা, জাকের হোসেন সিকদার, আবুল ফয়েজ, জাহাঙ্গীর আলম, মাও. আশরাফুজ্জামান, মাষ্টার জমির হোসেন তালুকদার, জসিম উদ্দিন শাহ, ইউপি চেয়ারম্যান (ভারপ্রাপ্ত) সেলিম , সুপার বদরুল হাসান হানাফী, মতলব মাতব্বর, মহিউদ্দিন পারভেজ, মো. রাসেল চৌধুরী, কে. এম. আমানুল্লাহ, মো. শফি আলম, মো. কুতুব উদ্দিন, মো. ইব্রাহিম খলিল, নজরুল ইসলাম, আশরাফ উদ্দিন সরোয়ার, হাবিবুল্লাহ, ইসমাঈল শাহ প্রমুখ। বিকেলে আলাদা পেন্ডেলে রাঙ্গুনিয়া সরকারি কলেজ মাঠে হুজুর কেবলার নসিহত শ্রবণ করেন ও তাঁর হাতে বায়আত গ্রহণ করেন মহিলারা।

পরে হুজুর কেবলা সৈয়্যদ মুহাম্মদ তাহের শাহ আছরের নামাজের পর পুরুষ পেন্ডেলে বায়আত করান। শাহজাদা আল্লামা হামিদ শাহ জোহর ও আছরের নামাজের ইমামতি করেন। পরে দেশ, জাতি ও মুসলিম উম্মাহ’র শান্তি কামনা করে মুনাজাত পরিচালনা করেন হুজুর কেবলা। সকাল থেকে রাঙ্গুনিয়া সরকারি কলেজ ও স্কুল মাঠ মূসল্লীদের পদভারে কানায় কানায় পূর্ন হয়ে উঠে। সারাদিন লাখো জনতার কণ্ঠে জিকির দরুদ ও ম্লোগানে মুখর হয়ে উঠে পুরো মাঠ।

Logo-orginal