, শুক্রবার, ১৪ আগস্ট ২০২০

Avatar jamil Ahamed

খোঁজ মিলেনি চুয়েট ছাত্র লোহাগাড়ার মেধাবী শহীদুলের

প্রকাশ: ২০১৯-১২-০৭ ১৪:১৬:৩১ || আপডেট: ২০১৯-১২-০৭ ১৪:১৬:৩১

Spread the love

চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (চুয়েট) এক শিক্ষার্থীকে ডিবি পরিচয়ে তুলে নেয়ার অভিযোগ উঠেছে। চট্টগ্রাম নগরীর পাহাড়তলী থানাধীন নয়া বাজার মৌসুমি আবাসিক এলাকা থেকে চুয়েটের ওই শিক্ষার্থীকে অপহরণ করা হয়েছে। অপহ্নত শিক্ষার্থীর নাম মো. শহীদুল ইসলাম আজাদ। সে বিশ্ববিদ্যালয়ের মেকানিকাল ইঞ্জিনিয়ারিং ডিপার্টমেন্টে অধ্যায়নরত।

নিখোঁজ ওই শিক্ষার্থীর পরিবার অভিযোগ করে বলেন, গত মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৯টায় মৌসুমি আবাসিক এলাকার তানযীমুল উম্মাহ মাদ্রাসার সামনে থেকে তুলে নিয়ে যায় ডিবি পরিচয়ে কয়েক জন লোক। তুলে নিয়ে যাওয়ার দুইদিন অতিবাহিত হলেও শহীদুল ইসলামের কোন খোঁজ মিলেনি।

এ ব্যাপারে পরিবার ও আত্মীয় স্বজনরা থানা ও ডিবি অফিসে যোগাযোগ করলে কেউ শহীদুলকে আটক করেনি বলে জানায়। পরে এনিয়ে শহীদুল ইসলামের বাবা মো. শাহ আলম বুধবার বিকেলে পাহাড়তলী থানায় একটি সাধারণ ডায়রী দায়ের করেন (জি.ডি নং :১৬৩,তারিখ:৪ ডিসেম্বর, ২০১৯ ইংরেজি)।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে শহীদুল আলমের বাবা শাহ আলম বলেন, আমার ছেলে লেখাপড়া করে টিউশনি করে সময় পার করে। কোন সাত পাঁচে নেই। পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ পড়ে। কেন আমার ছেলেকে নিয়ে গেলো আমরা বুঝতে পারছি না। দুইটা দিন চলে হেছে আমার ছেলের কোন খোঁজ খবর পাচ্ছি না। থানা পুলিশ ডিবির কাছে বার বার গিয়েও তারা আমাদের কিছু বলতে পারছে না।

এদিকে নিখোঁজ শহীদুল ইসলামের বন্ধুরা অভিযোগ করেন, ডিবি পুলিশ পরিচয়ে তুলে নিয়ে যাওয়ার পর থেকে পাহাড়তলী থানায় বার বার গিয়েও পুলিশের কোন সহযোগিতা পাওয়া যায়নি। পরিবারের পক্ষ থেকে ডিডি করতে চাইলে পুলিশ জিডি নেয়নি। দুই দিনের মাথায় বুধবার ৯৯৯ এ ফোন করার পর পুলিশ জিডি নিয়েছে।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে পাহাড়তলী থানার অফিসার ইনচার্জ মো. মাইনুর রহমান বলেন, এ নামে কাউকে আমাদের থানা পুলিশ আটক করেনি। ডিবিতে খবর নিয়েছি, তারাও আটক করেনি। তবে শহীদুল ইসলামকে কারা কি কারণে তুলে নিয়ে গেছে সে ব্যাপারে আমার অনুসন্ধান চালাচ্ছি।

Logo-orginal