, বৃহস্পতিবার, ১৩ আগস্ট ২০২০

Avatar jamil Ahamed

মার্কিন ইরান উত্তেজনা, মধ্যপ্রাচ্যে উৎকন্ঠায় বাংলাদেশীরা

প্রকাশ: ২০২০-০১-০৯ ১০:২৭:৫৩ || আপডেট: ২০২০-০১-০৯ ১০:২৭:৫৩

Spread the love

ফাইল ছবি,
আবুল কাশেম, আরটিএমনিউজ২৪ডটকমঃ শতভাগ বিদেশী শ্রমিক নির্ভর দেশ জিসিসি ভুক্ত সৌদি, কুয়েত, কাতার, আমিরাত, ওমান ও বাহরাইন । বৈধ ও অবৈধ ভাবে এই ৬ দেশে রয়েছে প্রায় ৩৫ লাখ বাংলাদেশি,

প্রবাসী বাংলাদেশীদের মধ্যে সৌদি আরবে সবচেয়ে বেশি সংখ্যক বসবাস, করে তাদের সংখ্যা প্রায় ১.২ মিলিয়ন। সৌদি আরব ছাড়াও আরব বিশ্বের আরো কয়েকটি দেশে যেমন: সংযুক্ত আরব আমিরাত, কুয়েত, ওমান, কাতার ও বাহরাইনে প্রচুর পরিমানের বাংলাদেশী প্রবাসী বসবাস করে।

এক কথায় বাংলাদেশের প্রবাসী রেমিটেন্সের বৃহৎ অংশ তথা অর্থনৈতিক চাকা সচলের মুল কারিগর মধ্যপ্রাচ্যে বসবাসরত বাংলাদেশীরা ।

ইরান মার্কিন যুদ্ধ লেগে গেলে তাহা কত ভয়াবহ হবে, তাহা গতকাল রাতে ইরাকে দুই মাঋক ঘাটিতে হামলা করে প্রমাণ দিয়েছে পরাশক্তি ইরান, এবং ঘোষণা দিয়েছে যেখানে মার্কিন ঘাটি সেখানে হামলা ।

অন্যদিকে অসমর্থিত সুত্রে প্রকাশ, ইসরাইলের পাশাপাশি দুবাইতেও হামলা করবে ইরান ।

এমন প্রেক্ষাপটে চরম উৎকণ্ঠা ও উদ্বেগের মধ্যে আছে আরব দেশে বসবাসরত বাংলাদেশী রেমিটেন্স যোদ্ধারা ।

এইদিকে গতকাল পররাষ্ট্রমন্ত্রী একে আব্দুল মোমেন এক সাক্ষাতকারে বিবিসিকে বলেছেন, উত্তেজনাকর পরিস্থিতির প্রেক্ষাপটে ইরান ও ইরাকসহ আশপাশের দেশগুলোতে থাকা বাংলাদেশের নাগরিকরা যেনো সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নেন সেজন্য দূতাবাসগুলোকে সহায়তা করার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

তবে ইরান এবং ইরাকে দূতাবাসের কর্মকর্তারা বলেছেন, এই দু’টি দেশে থাকা বাংলাদেশীদের সরিয়ে নেয়ার মতো পরিস্থিতি এখনও হয়নি এবং এখনই তাদের তেমন চিন্তা নেই।

বাগদাদসহ ইরাকের বিভিন্ন শহরে প্রায় দুই লাখ বাংলাদেশী শ্রমিক রয়েছে। সেখানে থাকা কয়েকজন শ্রমিক জানিয়েছেন, তাদের মধ্যে উৎকন্ঠা কাজ করছে। ইরানে দশ হাজারের মতো বাংলাদেশী থাকতে পারে বলে কর্মকর্তারা বলছেন।

তবে, গতকাল ট্রাম্পের ভাষণের পর যুদ্ধ না হওয়ার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে, কারণ হিসাবে অনেকে মনে করেন, তার ভাষণে যুদ্ধদেহী কোন মনোভাব প্রকাশ পায়নি, বরং সুর নরম করে শান্তি কামনা করেছেন ।

অন্যদিকে, নির্ভরযোগ্য সুত্রে জানা গেছে, কুয়েত ও কাতার ইরানের বিরুদ্ধে তাদের দেশে থাকা মার্কিন সামরিক ঘাটি ব্যবহারের অনুমতি দেয়নি ট্রাম্প প্রশাসনকে ।

সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনায় বলা যায়, আপাতত যুদ্ধের কোন সম্ভাবনা নেই, তাই মধ্যপ্রাচ্যে অবস্থানরত প্রবাসীরা নির্ভয়ে থাকুন, এমন আহবান জানান, আরটিএমের নির্বাহী পরিচালক আবুল কাশেম ।

Logo-orginal