, বৃহস্পতিবার, ৪ জুন ২০২০

Avatar jamil Ahamed

ভারতীয় অধিনায়ক ও টিম ম্যানেজার দায়ী করেছেন বাংলাদেশকে” খতিয়ে দেখবে আইসিসি

প্রকাশ: ২০২০-০২-১১ ০০:১০:১৬ || আপডেট: ২০২০-০২-১১ ০০:১০:১৬

Spread the love

শেষ হয়েও যেন শেষ হচ্ছে না যুব বিশ্বকাপ! মাঠের ঘটনা এ বার গড়াচ্ছে আইসিসি-র কোর্টে। ম্যাচ শেষের পরে বাংলাদেশ ক্রিকেটারদের আচরণ খতিয়ে দেখবে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের নিয়ামক সংস্থা। এমনটাই দাবি করেছেন ভারতীয় দলের টিম ম্যানেজার।

এই ঘটনায় অধিনায়ক প্রিয়ম গর্গ দায়ী করেছেন বাংলাদেশকেই। অথচ গতকালের খেলায় যা ঘটেছে তার জন্য দায়ি ভারতীয় যুবা খেলোয়াড়রা, ভিডিও ফুটেজ অন্তত তাই প্রমাণ করে ।

তবে বাংলাদেশি অধিনায়কের দুঃখ প্রকাশকে দূর্বলতা হিসেবে ভারতীয় মিডিয়া, যাহা অভদ্রতার পরিচায়ক বটে ।

রবিবার বিশ্বকাপ জয়ের আনন্দে বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা ঢুকে পড়েছিলেন মাঠের ভিতরে। কয়েক জনকে দেখা যায় উত্তেজিত ভঙ্গি করতে। এক ভারতীয় ক্রিকেটারের সঙ্গে হাতাহাতিতেও জড়িয়ে পড়েন এক বাংলাদেশি ক্রিকেটার। ওই বাংলাদেশি ক্রিকেটারের বিরুদ্ধে অভিযোগ তিনি নাকি অশ্রাব্য সব কথা বলছিলেন, এমন অভিযোগ ভারতীয় দলের ।

বাংলাদেশ দল বলছে, জয়ের পর উল্লাস করার সময় বাংলাদেশি পতাকা কেড়ে নিতে টানাটানি করে এক ভারতীয়, এবং অশ্রব্য ভাষায় গালাগালি করে বাংলাদেশি খেলোয়াড়দের ।

ভারতের অনূর্ধ্ব ১৯ দলের ম্যানেজার অনিল পটেল জানান, মাঠের ভিতরে ঝামেলার ভিডিয়ো ভাল করে খতিয়ে দেখে সিদ্ধান্ত নেবে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল। ক্রিকইনফো-কে দেওয়া সাক্ষাৎকারে ভারতের অনূর্ধ্ব ১৯ দলের ম্যানেজার বলেন, ‘‘ঠিক কী ঘটেছিল তা আমরা জানি না। হারের ধাক্কায় সবাই বিমর্ষ ছিল। ম্যাচ চলাকালীন এবং খেলার শেষের দিকে যা ঘটেছে, তা আইসিসি-র আধিকারিকরা ভাল করে খতিয়ে দেখবেন বলে জানতে পেরেছি।’’

দুই প্রতিবেশী দেশের ফাইনাল জুড়েই ছিল স্লেজিং, পাল্টা স্লেজিং, উত্তপ্ত বাক্যবিনিময়। ফিল্ড আম্পায়াররা দু’ দলের ক্রিকেটারদের একাধিক বার শান্ত করার চেষ্টা করেন। ম্যাচের পরের যে ভিডিয়ো ছড়িয়ে পড়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়, সেখানেও দেখা গিয়েছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করেছেন আম্পায়াররা।

বাংলাদেশী মিডিয়া আর ভারতীয় মিডিয়া নিজ দেশের খেলোয়াড়ের পক্ষে লিখবে এটাই স্বাভাবিক । তবে আইসিসির উচিৎ তদন্ত করে এমন ঘটনার পুনরাবৃত্তি রোধ করা ।

Logo-orginal