, শনিবার, ৩০ মে ২০২০

Avatar jamil Ahamed

মানুষের কাছে রোজার উপহার পৌঁছে দিবে ‘রাফাহ্ নানজীবা তোরসা’

প্রকাশ: ২০২০-০৪-২৪ ২০:২২:৫৯ || আপডেট: ২০২০-০৪-২৪ ২০:২৩:০১

Spread the love

রাকিবউদ্দিন, বিনোদন ডেস্কঃ বন্দরীনগর চট্টগ্রামের মেয়ে রাফাহ্ নানজীবা তোরসা।চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক বিষয়ের ছাত্রী রাফাহ্ নানজীবা তোরসা বহু গুণের অধিকারিনী। অভিনয়,নৃত্য,আবৃত্তি,অংকন,বিতর্ক ও উপস্থাপনায় বেশ পারদর্শী।

গত বছর ‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ-২০১৯’ মুকুট জয় করে লন্ডনে অনুষ্ঠিত মিস ওয়ার্ল্ডের মূলপর্বে বাংলাদেশের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করেন।৩ বছর বয়স থেকেই তিনি সাংস্কৃতিক অঙ্গনে নিজেকে সম্পৃক্ত করেছেন।

২০১০ সালে জাতীয় শিশু প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন এবং ভরতনাট্যম নাচে স্বর্ণপদক অর্জন করেছিলেন।এবং ঐ একই সালে মার্কস অলরাউন্ডার্স প্রতিযোগিতায় রানার্সআপ হয়ে ছিলেন। সংস্কৃতি চর্চার পাশাপাশি সামাজিক উন্নয়ন ও বিভিন্ন সচেতনতা মূলক কাজে নিজে জড়িত রেখেছেন তোরসা। “The Smile Foundation” নামে নিজের একটি সংগঠন আছে।

তাঁর এই সংগঠনটি এখনও ডেভেলপিং পর্যায়ে রয়েছে। তোরসা বলেন, পুরো পৃথিবীর মতো বাংলাদেশেও করোনা ভাইরাসের ভয়াল থাবায় সবাই গ্রাস হতে চলেছে। পুরো দেশ যখন লকডাউনে আছে,তখন দেশের বিভিন্ন প্রান্তরে শ্রমজীবী মানুষেরা খাদ্যের অভাবে দিন কাটাচ্ছে। তাদের পাশে অনেকেই দাঁড়াচ্ছে।এমন অসহায় মানুষদের পাশে “The Smile Foundation” কোনো ভূমিকা রাখছেন কিনা? রাহা নানজিবা তোরসা জিজ্ঞাসা করা হলে,তিনি জানান, আমি বর্তমানে চট্টগ্রামে আছি।এখানে কিছু কিছু এলাকায় নিজ উদ্যোগে কিছু পরিবার’কে সাহায্য করেছি,এবং আমার এলাকায় রাস্তায় পশুপ্রাণীদের খাওয়ানোর দায়িত্ব নিই।

আমি খোঁজ নিয়ে জানতে পেরেছি এমন অনেক এলাকা আছে,যেখানে মানুষ খুব কষ্টে আছেন খাদ্য সংকটে ভুগছেন।আমার সংগঠনের মাধ্যমে প্রশাসনের সাহায্যে ওইসব এলাকায় খাবার পৌঁছানোর উদ্যোগ নিয়েছি। প্রথমে আমি রাঙামাটি দিয়ে শুরু করার পরিকল্পনা রয়েছে। এখানে আমি ফান্ডরাইস করেছি দেশে এবং বিদেশে।যা এখনও চলমান।করোনা ভাইরাসের প্রকোপ যতদিন না দেশ থেকে পুরোপুরি নির্মুল হচ্ছে ততোদিন পর্যন্ত আমাদের এই কার্যক্রম চলবে।এভাবে আমরা সবাইকে খাদ্য সরবরাহ করে যাবো। আমার “The Smile Foundation” এখানে ভ্যালু বেজড এডুকেশন, মানসিক স্বাস্থ্য ও পরিবেশ নিয়ে কাজ করছে। আমার সংগঠনটি মূলত তিনটি বিষয়কে ফোকাস করে পুরো বাংলাদেশ নিয়েই কাজ করছো এবং ভবিষৎ-এ বৃহৎ আকারে করার পরিকল্পনা রয়েছে। দেশের অনেক বিদ্যালয় আছে যেগুলো তেমন আর্থিক সহযোগিতা পায়না।আমরা সেসব বিদ্যালয়গুলো’তে ছোট্ট পরিসরে আমরা লাইব্রেরী করে দিবো।

আমার ফাউন্ডেশনের সাথে ফান্ডিং সহযোগিতায় আছে লন্ডনের Woodpecker Hall Primary School এবং মিস ওয়ার্ল্ড এর অন্যান্য দেশের জাতীয় বিজয়ীরা। সম্প্রতি সোস্যাল মিডিয়াতে রাফাহ্ নানজীবা তোরসার জনসচেতনতামূলক একটি ভিডিও প্রকাশিত হয়েছে।সেখানে তোরসা করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় যারা যারা জনগণের নিরাপত্তা খাদ্যের ব্যবস্থা করছেন তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন।ডাক্তার,নার্স,পুলিশ,সেনাবাহিনী সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন। সবাইকে হোম কোয়ারেন্টাইনে সব নিয়মাবলী মেনে চলতে বলছেন। সরকারকে সহযোগিতা করতে বলছেন। কোনো প্রকার গুরুত্বপূর্ণ কাজ ছাড়া বাহিরে যেতে বারণ করেছেন এবং বাসায় এসে ২০ সেকেন্ড সাবান দিয়ে হাত ধৌত করতে বলেছেন,সাথে পানি অপচয় এড়িয়ে চলতে বলেছেন।

মানুষের পাশে দাঁড়াতে বলেছেন এবং অভুক্ত পশুপ্রাণীদের ১ বেলা হলেও খাবার দিতে বলেছেন।শারীরিক ও মানসিকভাবে শক্ত থাকার পরামর্শ দিয়েছেন।আগের মতো সুস্থ সুন্দর পৃথিবী দেখার স্বপ্ন ব্যাপ্ত করেন।

Logo-orginal