, সোমবার, ১০ আগস্ট ২০২০

Avatar admin

ইয়ামাহা ইয়াং স্টারে’ নানজীবা খান

প্রকাশ: ২০২০-০৭-০৪ ১৬:০৭:১০ || আপডেট: ২০২০-০৭-০৪ ১৭:৩৪:৪০

Spread the love

রাকিবউদ্দিন, বিনোদন ডেস্কঃ নানজীবা খান একাধারে ট্রেইনি পাইলট,সাংবাদিক,নির্মাতা, উপস্থাপিকা ,লেখক, ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর, বিএনসিসি ক্যাডেট অ্যাম্বাসেডর, ইউনিসেফ-এর তরুণ প্রতিনিধি এবং বিতার্কিক।বহুমাত্রিক এক প্রতিভার নাম।সম্প্রতি চ্যানেল আই ডিজিটালের নিয়মিত অনুষ্ঠান “ইয়াং স্টার” উপস্থাপনা করছেন। ইয়ামাহা নিবেদিত রাজু আলীম প্রযোজিত বিভিন্ন পেশার আইকন ও তারকাবহুল এই অনুষ্ঠানটি নানজীবার ব্যতিক্রমী উপস্থাপনা ও চটকদার প্রশ্নের জন্য ইতোমধ্যে হাজারো দর্শনের চাহিদার তালিকায় জায়গা করে নিতে সফল হয়েছে।

নানজীবা জানান, যখন আমি ক্যামেরার পিছনে কাজ করি তখন সবার কথা চিন্তা করেই সিদ্ধান্ত নিই। কিন্তু যখন আমি স্ক্রিনে আসি তখন আমি কিছুটা আত্নকেন্দ্রিক হয়ে যাই। কারণ ক্যামেরার সামনে যে কাজ করে তার কর্তব্যটা ঠিক মত পালন করা উচিত। তার উপরে গোটা প্রোডাকশনের আউটপুট নির্ভর করে। অনুষ্ঠানটি রবি থেকে বৃহস্পতি বিকেল ৪ টায় চ্যানেল আই’র ভেরিফাইড ফেইসবুক পেইজ থেকে সম্প্রচার করা হয়। বর্তমান কাজ নিয়ে জানান, আমি পুর্ণদৈর্ঘ্যের ডকুফিল্ম দি আনওয়ান্টেড টুইন নিয়ে কাজ করছি।

এটি নিয়ে পরিকল্পনা ও প্রত্যাশা দুটোই অনেক বেশি। এতে অভিনয় করেছেন দিপা খন্দকার, ওয়াহিদা মল্লিক জলি,শামস সুমন, তানহা তাস্নিয়া, নওশাবা আহমেদ,সোহেল খান, ড এনামুল হক, অ্যানি খান, শিরিন আলম, রাজু আলীম, সাইফ সাইফুল সহ আরও অনেকে। পর্দায় আরো দেখা যাবে আফসানা মিমি, দিলারা জামান, বন্যা মির্জা, হোমায়রা হিমু, আরজে ত্যাজ, চিত্রনায়িকা ববি সহ আরো অনেক জনপ্রিয় মুখ। সেকেন্ড স্লটের কাজ চলছে।ডকুফিল্মটির শেষে বিষয়টি নিয়ে তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু, সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর, সাবেক পররাষ্টমন্ত্রী দিপু মনি,আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক, এভারেস্ট বিজয়ী নিশাত মজুমদার এবং আস্ট্রেলিয়া, ভিয়েতনাম, নেপাল, ভূটান,শ্রীলংকাসহ মোট ১১ টি দেশের নাগরিকদের মতামত দেখা যাবে আশা করি খুব শীঘ্রই দর্শক আমার মৌলক গল্পের এই ভিন্নধর্মী কাজটি দেখতে পারবেন।

শিশুকাল থেকেই অর্জনের ঝুলি ভরা শুরু হয়েছে। ছবি আঁকায় আন্তর্জাতিক পুরষ্কার পাওয়ার মধ্য দিয়েই যাত্রা শুরু হয়। একের পর এক সম্মাননা পেয়েছেন নিজের কঠোর পরিশ্রমের মাধ্যমে।ইউথ অ্যাচিভমেন্ট অ্যাঅয়ার্ড, আলোকিত নারী সম্মাননা স্মারক, প্রথম প্রামাণ্যচিত্র ‘সাদা কালো’ পরিচালনার জন্য ‘ইউনিসেফের মীনা মিডিয়া অ্যাওয়ার্ড’ অর্জন করেন। স্কুল ও কলেজ জীবনে বিতার্কিক হিসেবে অর্জন করেছেন বেশ কিছু জাতীয় এবং আন্তর্জাতিক পুরস্কার। পেয়েছেন উপস্থিত ইংরেজি বক্তৃতায় বিএনসিসি ও ভারত্বেশ্বরী হোমসের প্রথম পুরস্কার।

২০০৭ সালে জীবনের প্রথম প্রতিযোগিতা জয়নুল কামরুল ইন্টারন্যাশনাল চিলড্রেন পেন্টিং কম্পিটিশনে অংশগ্রহন এবং পুরস্কার অর্জন করেন। জীবনের ১ম অর্জনই ছিল আন্তর্জাতিক।শুরুটা করেছিলেন রঙ তুলি দিয়ে।হাতে কলম ধরার আগেই পাঁচ বছর বয়সে মায়ের হাত ধরে গিয়েছিল কিশলয় কচিকাঁচার মেলায় ছবি আঁকা ও আবৃত্তি শিখতে। ২য় শ্রেণীতে পড়া অবস্থায় বাংলাদেশ টেলিভিশনের কাগজ কেটে ছবি আঁকি অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে মিডিয়ার জীবন শুরু করেন তিনি।বর্তমানে বিটিভি তে আমরা রঙ্গিন প্রজাপতি, আমাদের কথা, আনন্দ ভুবন, ও শুভ সকাল এবং চ্যানেল আই তে কথাবার্তা অনুষ্ঠান উপস্থপনা করছেন।

১৩ বছর বয়সে জীবনের প্রথম স্বল্প দৈর্ঘ্যের চলচিত্র “কেয়ারলেস” পরিচালনা করেন । জীবনের প্রথম প্রামাণ্য চিত্র “সাদা কালো” পরিচালনার জন্য “ইউনিসেফের মীনা মিডিয়া অ্যাওয়ার্ড” অর্জন করেন । আর এটি তৈরি করতে যা টাকা খরচ হয়েছে তার সবই ছিল তার টিফিনের জমানো টাকা। এরপরে “গ্রো আপ”, “ দি আনস্টিচ পেইন” সহ আরও কিছু প্রামাণ্য চিত্র তৈরি করেছেন । ৮ম শ্রেণীতে পড়াকালীন ঢাকার সাড়ে ৩ হাজার প্রতিযোগীকে টপকিয়ে শিশু সাংবাদিক হিসেবে যাত্রা শুরু করেন।

জীবনের ১ম সাক্ষাতকার নিয়েছিলেন সাকিব আল হাসানের । পর্যায়ক্রমে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, পররাষ্ট্রমন্ত্রী, সংস্কৃতিমন্ত্রী, অর্থমন্ত্রী, শিক্ষামন্ত্রী, ভূমিমন্ত্রী, খাদ্যমন্ত্রী, বেসামরিক বিমান ও পর্যটন মন্ত্রী,সমাজকল্যান মন্ত্রী,টেলিযোগাযোগমন্ত্রী,গণপুর্তমন্ত্রী, তথ্য-প্রযুক্তিপ্রতিমন্ত্রী,স্পিকার ড. শিরিন শারমিন চৌধুরী, মেয়র সাঈদ খোকন সহ বিভিন্ন পেশার বিশিষ্ট মানুষ যেমন- সায়মা ওয়াজেদ পুতুল, সেলিনা হোসেন, এমদাদুল হক মিলন, হাবিবুল বাশার, আবেদা সুলতানা, সাদেকা হালিম, নিশাত মজুমদার, ফরিদুর রেজা সাগর,জুয়েল আইচ,র‌্যাবের প্রধান বেনজির আহমেদ, ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এস এম ফেরদৌস, ওয়াল্ড ডিবেট সোসাইটির পরিচালক অ্যালফ্রেড স্নাইডার ও ভারতের রক্ষামন্ত্রী সহ এ পর্যন্ত ৮০ জন বিশিষ্ট জনদের সাক্ষাৎকার নিয়েছেন। একাদশ শ্রেণিতে পড়াকালীন দ্বায়িত্ব পালন করেছেন ক্যামরিয়ান ডিবেটিং সোসাইটির “ভাইস প্রেসিডেন্ট” হিসেবে। স্কুল ও কলেজ জীবনে বিতার্কিক হিসেবে অর্জন করেছেন বেশ কিছু জাতীয় এবং আন্তর্জাতিক পুরস্কার।

পেয়েছেন উপস্থিত ইংরেজি বক্তৃতায় বিএনসিসি ও ভারত্বেশ্বরী হোমসের প্রথম পুরস্কার। বিদেশের মাটিটে বাংলাদেশকে তুলে ধরেছেন দুই দুইবার। এবছর ইউনিসেফ থেকে বাংলাদেশের একমাত্র তরুন প্রতিনিধি হিসেবে ও দ্বাদশ শ্রেণিতে পড়াকালীন “বিএনসিসি ক্যাডেট অ্যাম্বাসেডর” হিসেবে বাংলাদেশ ন্যাশনাল ক্যাডেট কোর থেকে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী, রাষ্ট্রপতি প্রনব মুখার্জীর সাথে সাক্ষাৎ এবং রক্ষামন্ত্রীর সাক্ষাৎকার নিয়েছেন । রাশিয়া,ভারত,সিঙ্গাপুর, কাজাকিস্তান,কিরকিস্তান,ভিয়েতনাম,শ্রীলংকা, নেপাল,ভুটান,মালদ্বীপ সহ দেশ সহ মোট ১১ টি দেশের সামনে বাংলাদেশকে তুলে ধরেছেন। প্রশিক্ষণের অংশ হিসেবে করেছেন বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর “রাইফেলে ফায়ারিং”, “অ্যাসোল্ড কোর্স”, “বেয়ানোট ফাইটিং” ও “সশস্ত্র সালাম”।

Logo-orginal