, শুক্রবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০

Avatar admin

মহামারী ও বন্যা” নাখাল বানভাসি মানুষ

প্রকাশ: ২০২০-০৭-২৪ ১৬:১১:২৬ || আপডেট: ২০২০-০৭-২৪ ১৬:১১:২৮

Spread the love

করোনায় বিপর্যস্থ মানুষকে এবার পানির ধাক্কা সামলাতে হচ্ছে, দেশের বিভিন্ন জেলার বাসিন্দা দারুন কষ্টে পড়েছে বন্যার কারণে, তবে বন্যা পরিস্থিতি ক্রমান্বয়ে উন্নতি হতে পারে বলে জানিয়েছে বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্র। বৃহস্পতিবার পূর্বাভাসে বলা হয়, ব্রহ্মপুত্র-যমুনা নদীর তীরবর্তী অঞ্চলে আগস্টের প্রথম সপ্তাহে বন্যা পরিস্থিতির ক্রমান্বয়ে উন্নতি হতে পারে।

এছাড়া গঙ্গা-পদ্মা নদীর তীরবর্তী অঞ্চলগুলোতে ২৭শে জুলাইয়ের পর বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি হতে পারে। আর ঢাকার আশপাশে ৩০শে জুলাই পর্যন্ত বন্যা স্থায়ী হতে পারে।

পূর্বাভাসে আরো বলা হয়েছে, ব্রহ্মপুত্র-যমুনা নদীর পানি বাড়তে পারে। ২৬শে জুলাই নাগাদ এ নদীর পানি সর্বোচ্চ পর্যায়ে পৌঁছাতে পারে। ফলে ২৬শে জুলাই পর্যন্ত কুড়িগ্রাম, বগুড়া, গাইবান্ধা, সিরাজগঞ্জ, জামালপুর, টাঙ্গাইল ও মানিকগঞ্জ জেলার বন্যা পরিস্থিতি অবনতি হতে পারে। চলমান বন্যা পরিস্থিতি জুলাইয়ের শেষ পর্যন্ত অব্যাহত থাকতে পারে। তবে আগস্টের প্রথম সপ্তাহে ক্রমান্বয়ে বন্যা পরিস্থিতির উন্নতির সম্ভাবনা রয়েছে।

গঙ্গা-পদ্মা নদীর পানি বাড়তে পারে। রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ পয়েন্ট, মুন্সিগঞ্জের ভাগ্যকূল পয়েন্ট ও শরীয়তপুরের সুরেশ্বর পয়েন্টে পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকতে পারে। ২৭ জুলাইয়ের পর ক্রমান্বয়ে এসব জেলার বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি হতে পারে।

ঢাকার চারপাশের নদীগুলোর পানি বাড়তে পারে। নারায়ণগঞ্জে শীতলক্ষ্যা নদীর পানি বাড়তে পারে, যার ফলে জেলার নিম্নাঞ্চলে বন্যা পরিস্থিতি আগামী সাতদিন পর্যন্ত স্থায়ী হতে পারে। আগামী ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে ডেমরা পয়েন্টে বালু নদী, মিরপুর পয়েন্টে তুরাগ নদী ও রেকাবি বাজার পয়েন্টে ধলেশ্বরী নদীর পানি বিপৎসীমা অতিক্রম করতে পারে বলে পূর্বাভাসে বলা হয়। সুত্রঃ দৈনিক মানবজমিন ।

Logo-orginal